মাছ রপ্তানি করেই ৪ হাজার ২৫০ কোটি টাকা আয় সীতাকুণ্ডে

সারাদেশে ২০১৮-১৯ অর্থবছরে ৭৩ হাজার ১৭১ মেট্রিক টন মাছ রপ্তানি করে ৪ হাজার ২৫০ কোটি টাকার বৈদেশিক মুদ্রা অর্জিত হয়েছে।

শনিবার (২৮ আগস্ট) উপজেলা হলরুমে জাতী মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সন্মেলনে এ তথ্য জানান উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. শামীম আহমেদ। এতে মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে মৎস্য বিভাগের বিভিন্ন কার্যক্রম তুলে ধরা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে মৎস্য কর্মকর্তা মো. শামীম আহমেদ বলেন, সীতাকুণ্ড উপজেলায় স্বাদু ও নোনা পানির মাছে ভরপুর। প্রায় ৩৮ কিলোমিটার সমুদ্র উপকূল থেকে বিভিন্ন সামুদ্রিক মাছ এবং ৬ হাজার ২৩৪টি পুকুরে নানা রকম মিঠা পানির মাছ চাষ করা হয়। এখানে মৎস্যজীবি রয়েছে প্রায় ৪ হাজার ৮০৫ জন এবং মৎস্য চাষি আছে ৩ হাজার ৫১০ জনের মতো। উপজেলার ১৫টি আড়ত ও ২৫টি মাছের হাটে এসব মাছ বেচাকেনা হয়।

আরও পড়ুন: পোয়া মাছের কেজি ১১ হাজার টাকা!

তিনি আরও বলেন, সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বছরে দুবার ৮৭ দিন মাছ ধরা বন্ধ থাকার কারণে (১৪ অক্টোবর থেকে ৪ নভেম্বর এবং ২০ মে থেকে ২৩ জুলাই) মাছ উৎপাদন বৃদ্ধি পায়। এর ফলে ইলিশ উৎপাদনে বাংলাদেশ এখন বিশ্বে প্রথম ও অন্যান্য মাছ উৎপাদনেও এখন প্রথম সারিতে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. শাহাদাত হোসেন, উপজেলা প্রকৌশলী গোলাম মোস্তফা, সীতাকুণ্ড প্রেসক্লাব সভাপতি সৌমিত্র চক্রবর্তী, সাধারণ সম্পাদক লিটন চৌধুরী ও যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা মো. শাহ আলমসহ সাংবাদিকরা।

সালাউদ্দিন/আরবি

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm