ঝুপড়ি ঘর ছেড়ে বৃদ্ধা মনোয়ারা বেগম এখন নতুন ঘরে, সঙ্গে প্রতিবন্ধী মেয়েও

সীতাকুণ্ডে স্বামীহারা বৃদ্ধা মনোয়ারা বেগমকে জায়গাসহ বাড়ি উপহার দিয়েছে পুলিশ। এই ঘরে বৃদ্ধার সঙ্গে থাকবেন তার ছেলে দেলোয়ার হোসেন ও প্রতিবন্ধী মেয়ে মাহফুজা বেগম। ঘর পেয়ে অনেক খুশি তিনি। এজন্য পুলিশের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন তিনি।

রোববার (১০ এপ্রিল) দুপুরে বৃদ্ধা মনোয়ারা বেগমের ঘরের চাবি বুঝিয়ে দেন সীতাকুণ্ড থানার ওসি (তদন্ত) সুমন বণিক।

আরও পড়ুন: লোহাগাড়ার গৃহহীন ১৯৬ পরিবার পাচ্ছে নতুন ঘর

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, মুজিববর্ষে একজন মানুষও ভূমিহীন থাকবে না, গৃহহীন থাকবে না’ প্রধানমন্ত্রীর এ ঘোষণার পর বাংলাদেশ পুলিশের পক্ষ থেকে দেশের প্রতিটি থানায় একজন করে প্রকৃত অসহায় মানুষকে জায়গাসহ ঘর দেওয়ার উদ্যোগ নেওয়া হয়। এরই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ পুলিশের সহায়তায় ও চট্টগ্রাম জেলা পুলিশের সার্বিক তত্ত্বাবধানে সীতাকুণ্ড উপজেলার বাঁশবাড়িয়া ইউনিয়নের আকিলপুর গ্রামে ২ দশমিক ৩৩ শতাংশ জায়গাসহ একটি সেমিপাকা টিনশডের ঘর বৃদ্ধা মনোয়ারা বেগমকে উপহার দেয় পুলিশ। এদিন সারাদেশে এ কার্যক্রম উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এ বিষয়ে সীতাকুণ্ড থানার ওসি (তদন্ত) সুমন বণিক আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, বৃদ্ধা মনোয়ারা বেগম সোনাইছড়ির কেশবপুর এলাকার পাহাড়ের তলদেশে একটি ঝুপড়ি ঘরে বসবাস করতেন। মানুষের সাহায্য-সহযোগিতায় কোনোরকম জীবন বাঁচিয়েছেন। কখনো ভাবেননি একটি ঘর কেউ তাকে বিনামূল্যে দেবে। বাংলাদেশ পুলিশের ঘরটি পেয়ে তিনি এখন অনেক খুশি।

সালাউদ্দিন/আরবি

মন্তব্য নেওয়া বন্ধ।

ksrm