মদে শুরু, এরপর মনোমালিন্য, সমাপ্তি গাছে

২০০৯ সালে বিয়ে হয়েছিল ফটিকছড়ির ভূজপুরের সুলতানা রাজিয়ার (৩২)। স্বামী মদের নেশায় বুদ থাকায় সংসার টিকেনি। এরপর ফের বিয়ে। কিছুদিন পর সেই স্বামীর সঙ্গেও মনোমালিন্য। রাজিয়ার জীবনের শেষটা হয়েছে গাছে।

রোববার (২৭ জুন) দুপুরে গাছের সঙ্গে ঝুলে ছিল রাজিয়ার মরদেহ। উপজেলার বাগানবাজার ইউনিয়নের আলমপুর গ্রামের বদিউল আলমের বাড়ির পাশ থেকে মরদেহটি উদ্ধার করে পুলিশ।

নিহত সোলতানা রাজিয়া ওই গ্রামের মৃত মোফাজ্জল মিয়ার কন্যা। তিনি সীতাকুণ্ডে স্বামীর সঙ্গে ভাড়া বাসায় থাকতেন।

নিহতের মা বিবি ছেমনা বেগম বলেন, ২০০৯ সালে ফেনীর এক যুবকের সঙ্গে রাজিয়ার বিয়ে হয়। স্বামী মাতাল হওয়ায় চট্টগ্রামের একটি পোশাক কারখানায় চাকরি নেয় মেয়ে। পরে একটি বেসরকারি কারখানার গাড়ি চালককে বিয়ে করে সেখানে একটি ভাড়া বাসায় থাকত। হঠাৎ উভয়ের মধ্যে মনোমালিন্য সৃষ্টি হলে গত শনিবার বিকেলে মেয়ে আমার বাড়িতে চলে আসে।

ভূজপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আছহাব উদ্দিন বলেন, খবর পেয়ে মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তর জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। আপাতত ধারণায় মনে হচ্ছে আত্মহত্যা। পরিবারের সদস্যদের এ বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

আক্কাছ/আরবি

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm