‘ভয়’ দেখিয়ে ধর্ষণ—রেলওয়ে কলোনিতে লুকিয়ে থাকা ধর্ষককে ধরল র‌্যাব

যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত ধর্ষক উত্তম তালুকদারকে অবশেষে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-৭। এক কন্যা শিশুকে ধর্ষণ করে ছয় বছর লুকিয়ে ছিল সাজাপ্রাপ্ত এই আসামি।

বুধবার (২৬ জানুয়ারি) নগরের পাহাড়তলী রেলওয়ে কলোনি এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তার উত্তম তালুকদার রাউজান থানার জামুয়াইন তালুকদার বাড়ির রণজিত তালুকদারের ছেলে।

র‌্যাব সূত্রে জানা যায়, অভিযুক্ত উত্তম তালুকদার প্রতিবেশী পঞ্চম শ্রেণি এক কন্যা শিশুকে বেশ কয়েকবার ধর্ষণ করে। ওই শিশুকে এসিড নিক্ষেপ করার, পরিবারের সদস্যদের হত্যা এবং তার বড় বোনের সংসার ভেঙে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে সে বারবার ধর্ষণ করে।

আরও পড়ুন: সীতাকুণ্ড পাহাড়ে নারীকে ধর্ষণের পর খুন, জসিম ঝুলবে ফাঁসিতে

গত ২০১৬ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় একই কায়দায় এসিডের ভয় দেখিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে পালিয়ে যায় অভিযুক্ত আসামি। এরপর ভিকটিম তার ভাইকে ধর্ষণের ঘটনা জানায়। পরে তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টার (ওসিসি) ভর্তি করা হয়।

আরও জানা যায়, এ ঘটনায় ভিকটিমের ভাই বাদী হয়ে রাউজান থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। তদন্ত শেষে পুলিশ আসামি উত্তম তালুকদারের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। পরবর্তীতে মামলাটি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২ থেকে দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে হস্তান্তর করা হয়। বিচার শেষে অভিযুক্ত আসামি উত্তম তালুকদারকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে র‌্যাব-৭ এর সিনিয়র পরিচালক (মিডিয়া) মো.নুরুল আবছার আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, প্রায় ছয় বছর আগে পঞ্চম শ্রেণিতে পড়ুয়া এক শিশুকে ধর্ষণের মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি উত্তম তালুকদারকে নগরের পাহাড়তলী রেলওয়ে কলোনি এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ধর্ষণের সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন আসামি উত্তম তালুকদার। আইনানুগ প্রক্রিয়া শেষে তাকে সংশ্লিষ্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

এএইচ/আরবি

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm