ভাড়া নিয়ে নৈরাজ্য আনোয়ারায়, কোথাও নেই তালিকা—নিচ্ছে ‘ডাবল’ ভাড়া

আনোয়ারায় হঠাৎ ডাবল হয়ে গেছে বাস ভাড়া। কিছুদিন আগেও যে ভাড়া ছিল ১৫ টাকা, এখন তা ৩০ টাকা! এভাবে ইচ্ছেমতো ভাড়া আদায় করায় প্রতিদিন বাস চালক-হেলপারের সঙ্গে চলছে বাকযুদ্ধ।

এর আগে ৫ আগস্ট রাতে সরকার জ্বালানি তেলের মূল্য সমন্বয়ের যুক্তিতে দাম বাড়ানো সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি জারি করে। এর পর থেকে এক লাফে রেকর্ড পরিমাণ বেড়ে যায় ডিজেল, কেরোসিন ও অকটেনের মূল্য। ফলে পরদিন থেকে শুরু হয় পরিবহন সংগঠনগুলোর ধর্মঘট। এতে বাড়ে যাত্রীদের ভোগান্তি।

৬ আগস্ট রাতে পরিবহন সংগঠনগুলোর তোপের মুখে সরকার পরিবহনের ভাড়া বাড়ানের সিদ্ধান্ত নেয়। সেই হিসাবে প্রতি কিলোমিটারে দূর পাল্লায় ৪০ পয়সা এবং নগরে ৩৫ পয়সা ভাড়া বাড়ানো হয়। এই নিয়ে দূর পাল্লায় আগের ভাড়া ১ টাকা ৮০ পয়সা থেকে বেড়ে ২ টাকা ২০ পয়সা করা হয়।

ঢাকা ও চট্টগ্রাম মহানগরীতে নতুন ভাড়া করা হয় ২ টাকা ৫০ পয়সা। আগে ভাড়া ছিল ২ টাকা ১৫ পয়সা। প্রতি কিলোমিটারে ভাড়া বাড়ে ৩৫ পয়সা। কিন্তু চট্টগ্রামের আনোয়ারা উপজেলায় এসব নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করে যাত্রীদের কাছ থেকে দ্বিগুণ ভাড়া আদায় করছে বাসগুলো।

সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক নতুন ভাড়ার তালিকা প্রতিটি বাসে টাঙানোর কথা থাকলেও সরেজমিনে দেখা যায় আনোয়ারার কোনো বাসে ভাড়ার তালিকা নেই। নিজেদের ইচ্ছেমতো ভাড়া আদায় করার অভিযোগ করেছে যাত্রীরা।

Yakub Group

এদিকে খবর নিয়ে জানা যায়, অতিরিক্ত টাকা আদায় করার বিষয়ে প্রতিটি বাসে যাত্রীদের সঙ্গে চালক-হেলপারের তুমুল বাকবিতণ্ডা চলছে।

আরও পড়ুন: চট্টগ্রামে সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারে চলছে গণপরিবহন—বাড়বে ভাড়া

চট্টগ্রাম শহর থেকে চৌমুহনী আসা বাসযাত্রী শওকত বলেন, করোনাকালীন সময়ে সিট অনুযায়ী যাত্রী নেওয়াতে ১৫ টাকার ভাড়া ২০ টাকা করে নেওয়া হতো। কিন্তু করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার পর গাদাগাদি করে যাত্রী নেওয়ার পরও ২০ টাকা থেকে ভাড়া কমানো হয়নি। আবার এখন সরকারি ঘোষণা অনুযায়ী ৪ টাকা বাড়ার কথা থাকলেও তারা ডাবল ভাড়া আদায় করছে।

লিয়াকত আলী নামের আরেক যাত্রী বলেন, বাস কর্তৃপক্ষ শুধু ভাড়া বাড়ানোর ইস্যু খোঁজে। এখন তেলের দাম বাড়ানোর ইস্যু তুলে ডাবল ভাড়া আদায় করছে।

এদিকে একরাম নামের এক বাস কন্ট্রাক্টর বলেন, সবকিছুর দাম বাড়তি। আর যে হারে তেলের দাম বাড়ানো হয়েছে ভাড়াতো বেশি নিতেই হবে। আমাদের না বলে বিষয়গুলো সরকারকে বলেন, তেলের দাম কমানোর জন্য।

অপরদিকে তালিকা না টাঙানোর বিষয়ে বাস ড্রাইভারদের সঙ্গে কথা হলে তারা বলেন, শিগগির তালিকা টাঙানোর ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

ভাড়ার তালিকা না টাঙিয়ে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের বিষয়ে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আব্দুল্লাহ আল মুমিন আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, সরকারি নির্দেশনার বাইরে বাড়তি ভাড়া নেওয়ার সুযোগ নেই। আর সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক সকল বাসে তালিকা ঝুলাতে হবে। সম্প্রতি তালিকা না ঝুলিয়ে বাড়তি ভাড়া আদায় করায় ৬ বাসকে ১২ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। ভাড়া নৈরাজ্য ঠেকাতে এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।

উল্লেখ্য, শুক্রবার (৫ আগস্ট) মধ্যরাত থেকে ডিজেল ও কেরোসিনের দাম লিটারপ্রতি ৮০ টাকা থেকে ১১৪ টাকা করা হয়েছে। লিটারপ্রতি পেট্রোলের দাম ৮৬ টাকা থেকে ১৩০ টাকা করা হয়েছে। অকটেনের দাম বেড়েছে ৮৯ টাকা থেকে ১৩৫ টাকা।

এসআর/আলোকিত চট্টগ্রাম

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

মন্তব্য নেওয়া বন্ধ।

ksrm