রাঙ্গুনিয়া—৮ বছর পর পেল বিএনপির ২ আহ্বায়ক কমিটি

রাঙ্গুনিয়ায় দীর্ঘ ৮ বছর পর উপজেলা ও পৌরসভার নতুন আহ্বায়ক কমিটির অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

রোববার (৩০ জানুয়ারি) বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও চট্টগ্রাম উত্তর জেলার আহ্বায়ক গোলাম আকবর খন্দকার এ কমিটির অনুমোদন দেন।

অনুমোদিত রাঙ্গুনিয়া উপজেলা বিএনপির ৫৯ সদস্যের আহ্বায়ক কমিটিতে অধ্যাপক কুতুব উদ্দিন বাহারকে আহ্বায়ক এবং আবু আহমেদ হাসনাতকে সদস্য সচিব করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: মিরসরাইয়ে ৩ আহ্বায়ক কমিটি পেল বিএনপি

Yakub Group

এছাড়া পৌরসভা বিএনপির ৩০ সদস্যের কমিটিতে মাহবুব ছাপাকে আহ্বায়ক এবং আবদুস সালামকে সদস্য সচিব করা হয়।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, ২০১৪ সালের ৭ জুন তৎকালীন চট্টগ্রাম উত্তর জেলা বিএনপির আহ্বায়ক লায়ন আসলাম চৌধুরী ও সদস্য সচিব প্রয়াত আবদুল্লাহ আল হাসান স্বাক্ষরিত রাঙ্গুনিয়া উপজেলা ও পৌরসভা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়। উপজেলার কমিটিতে শওকত আলী নূরকে আহ্বায়ক ও প্রফেসর মো. মুহসিন সদস্য সচিব এবং পৌরসভার কমিটিতে মো. মাহবুব ছাপা আহ্বায়ক ও মো. হেলাল উদ্দিন শাহ ছিলেন সদস্য সচিব।

২০১৬ সালের দিকে কমিটি নিয়ে অন্তর্কোন্দল সৃষ্টি হলে পাল্টা আহ্বায়ক কমিটি গঠন করেন অধ্যাপক কুতুব উদ্দিন বাহার। সেই কমিটির আহ্বায়ক ছিলেন কুতুবউদ্দিন বাহার নিজেই। সদস্য সচিব ছিলেন আবু আহমেদ হাসনাত। এরপর থেকে বিভক্ত হয়ে দলীয় কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছিল বিএনপি।

সর্বশেষ গত ৩০ জানুয়ারি রাঙ্গুনিয়া উপজেলা ও পৌর বিএনপির আগের কমিটি বিলুপ্ত করে নতুন আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়। একইসঙ্গে আগামী তিন মাসের মধ্যে উপজেলার সব ইউনিয়নে নতুন করে আহ্বায়ক কমিটি গঠনের নির্দেশ দেওয়া হয়।

আরও পড়ুন: মিরসরাইয়ে নতুন করে পথ চলতে চায় যুবদল, ৪ আহ্বায়ক কমিটির অনুমোদন

এ বিষয়ে বর্তমান উপজেলা বিএনপির সদস্য সচিব আবু আহমেদ হাসনাত বলেন, পূর্বের উপজেলা ও পৌর বিএনপির কমিটি ভেঙে নতুন করে তিন মাসের মধ্যে উপজেলা ও পৌর বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি গঠন করার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। নির্দেশনা মোতাবেক তিন মাসের মধ্যে আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হবে। এছাড়া নতুন আহ্বায়ক কমিটি করার পর পর্যায়ক্রমে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন ও পৌরসভার সব ওয়ার্ডে আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হবে।

রাঙ্গুনিয়া উপজেলা বিএনপির নবনির্বাচিত আহ্বায়ক অধ্যাপক কুতুবউদ্দিন বাহার বলেন, ‘রাঙ্গুনিয়ায় দীর্ঘ ৮ বছর কমিটি না থাকায় অনেক পরীক্ষিত জিয়ার সৈনিক হারিয়ে গেছে। বর্তমানে উপজেলা ও পৌরসভা বিএনপির কর্মীরা প্রাণ ফিরে পেয়েছে। আমি সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। দলের সিনিয়র নেতারা আমাকে যে দায়িত্ব প্রদান করেছেন তা আমি সততা নিষ্ঠা ও জিয়ার আদর্শ মোতাবেক পালন করবো ইনশাল্লাহ।

মতিন/আরবি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm