বাবার সঙ্গে শিশুর লাশ—ঈদের কেনাকাটার আনন্দ বিষাদ হলো রক্তে

স্ত্রী সন্তানদের নিয়ে ঈদের কেনাকাটা করা হলো না গার্মেন্টসকর্মী আবু সালেহ সিকদারের। শনিবার (৯ এপ্রিল) সকালে রিকশায় করে তিন সন্তান ও স্ত্রীকে নিয়ে যাচ্ছিলেন ঈদের কেনাকাটা করতে। পথেই কনটেইনার ট্রান্সপোর্টেসন সার্ভিস লিমিটেড কোম্পানির কাভার্ডভ্যানের চাকায় পিষ্ট হয়ে মারা যান আবু সালেহ ও তার নয় মাসের ছেলে সুমিত। ভাগ্যক্রমে বেঁচে যান স্ত্রী ও দুই সন্তান।

শনিবার (৯ এপ্রিল) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে ইপিজেড থানার বন্দরটিলা শাহ প্লাজা মার্কেটের সামনে এ দুর্ঘটনাটি ঘটে।

নিহতরা হলেন— বরগুনা জেলার পাথরঘাটা থানার পূর্ব গোটাবাছা গ্রামের আবু সালেহ সিকদার (৩৫) ও তার নয় মাসের শিশুসন্তান আবদুল্লাহ আল সুমিত। এতে প্রাণে বেঁচে যায় দুই সন্তান ও স্ত্রী। দুর্ঘটনায় তারা আহত হয়ে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে।

ঘটনাস্থল থেকে ঘাতক কাভার্ডভ্যান ও চালককে আটক করা হয়েছে

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, ইপিজেড এইচকেডি গার্মেন্টসে চাকরি করতেন আবু সালেহ সিকদার। সকালে বন্দরটিলা আকমল আলী রোডের বাসা থেকে রিকশায় করে তিন সন্তান ও স্ত্রীকে নিয়ে বন্দরটিলা শাহ প্লাজা মার্কেটে আসছিলেন ঈদের কেনাকাটা করতে। আসার পথে রিকশাটিকে পেছন থেকে ধাক্কা দেয় কনটেইনার ট্রান্সপোর্টেসন সার্ভিস লিমিটেড কোম্পানির একটি কাভার্ডভ্যান। এতে ছিটকে সড়কে পড়ে যান আবু সালেহ ও তার নয় মাসের ছেলে সুমিত। স্ত্রী ও অন্য দুই সন্তান আহত হলেও মুহূর্তেই কাভার্ডভ্যানের চাকায় পিষ্ট হয়ে মারা যান আবু সালেহ ও তার নয় মাসের ছেলে সুমিত।

তারা আরও জানান, ঘটনায় আহত দুই ছেলে ও স্ত্রীকে উদ্ধার করে চমেক হাসপাতালে পাঠানো হয়। পরে ঘাতক কাভার্ডভ্যান চালককে আটক করে গণধোলাই দিয়ে ইপিজেড থানা পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়। এ সময় পথচারীরা উত্তেজিত হয়ে কাভার্ডভ্যানের গ্লাস ভাংচুর করেন। পরে ইপিজেড থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করেন।

আরও পড়ুন: সাগরে ডাকাতি করে কামাল বাহিনীর ৫ ডাকাত লুকিয়ে ছিল ইপিজেডে

ইপিজেড থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আবু সাঈদ বলেন, স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে ঈদের শপিং করতে যাওয়ার পথে বন্দরটিলা শাহ প্লাজা মার্কেটের সামনে একটি রিকশাকে পেছন থেকে ধাক্কা দেয় কাভার্ডভ্যান। ধাক্কা দিলে সড়কে ছিটকে পড়ে কাভার্ডভ্যানের চাকায় পিষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলে দুজনের মৃত্যু হয়। গুরুতর আহত হন আরো তিনজন। তাদের উদ্ধার করে চমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, ঘটনাস্থল থেকে ঘাতক কাভার্ডভ্যান ও চালককে আটক করা হয়েছে। নিহতদের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চমেক হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এএইচ/এসআই

মন্তব্য নেওয়া বন্ধ।

ksrm