সুগন্ধার বাতাসে গন্ধ শুধু পোড়া লাশের, স্বজনহারাদের আর্তনাদ—তদন্ত কমিটি

ঝালকাঠির সুগন্ধা নদীতে ভেসে বেড়াচ্ছে পোড়া লাশের গন্ধ। সেই সঙ্গে তীরজুড়ে স্বজনহারাদের আর্তনাদে ভারী হয়ে উঠেছে পরিবেশ।

বরগুনাগামী এমভি অভিযান-১০ নামে একটি লঞ্চে ভয়াবহ আগুনে পুড়ে এ পর্যন্ত প্রাণ হারিয়েছেন ৩৮ জন। দগ্ধ হয়েছেন আরও বহু যাত্রী। নিহতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলে শঙ্কা করা হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার (২৩ ডিসেম্বর) রাত ৩টার দিকে লঞ্চটি ঢাকা থেকে বরগুনা যাওয়ার পথে ঝালকাঠির সুগন্ধা নদীতে পৌঁছালে ইঞ্জিন রুমে আগুন ধরে।

আরও পড়ুন: লাখ টাকার কাবিনের চাপ, গ্যারেজে মিলল ঝুলন্ত লাশ

এদিকে অগ্নকাণ্ডের ঘটনায় দগ্ধ ৮০-৯০ জন বরিশাল, ঝালকাঠিসহ আশপাশের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন বলে জানা গেছে।

ঝালকাঠির ডিসি মো. জোহর আলী জানান, লঞ্চ থেকে এ পর্যন্ত ৩৮ জনের লাশ উদ্ধার করেছেন উদ্ধারকর্মীরা। ৭২ জনকে আহত ও দগ্ধ অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ঝালকাঠি ফায়ার সার্ভিসের উপপরিচালক কামাল উদ্দিন ভুইয়া জানান, এ পর্যন্ত ৩৮ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন শতাধিক যাত্রী। হতাহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। তবে তাৎক্ষণিকভাবে নিহতদের নামপরিচয় জানা যায়নি।

ঝালকাঠি সদর থানার ওসি খলিলুর রহমান জানান, রাত ৩টার দিকে লঞ্চের ইঞ্জিনরুমে আগুন লাগে। দগ্ধদের দ্রুত পার্শ্ববর্তী হাসপাতালগুলোকে পাঠিয়ে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। গুরুতর দগ্ধদের বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে পাঠানো হয়েছে।

আর পড়ুন: পাহাড়িকা এক্সপ্রেসের ধাক্কায় মুহূর্তেই লাশ বাবুল

অন্যদিকে নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী অগ্নিকাণ্ডে নিহতদের পরিবারের প্রতি শোক ও সমবেদনা জানিয়েছেন।

তদন্ত কমিটি গঠন

ঝালকাঠির সুগন্ধা নদীতে অভিযান-১০ লঞ্চে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন করেছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ-বিআইডব্লিউটিএ।

বিআইডব্লিউটিএর উপপরিচালক মিজানুর রহমান জানান, বন্দর ও পরিবহন বিভাগের অতিরিক্ত পরিচালক মো. সাইফুল ইসলামকে আহ্বায়ক করে ছয় সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি করা হয়েছে।

আরবি

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm