স্প্রে করেই ১৪ দিনের করোনামুক্ত, অনন্য আবিষ্কার বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত বিজ্ঞানীর

অসাধারণ এক আবিষ্কার করেছেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত তরুণ ব্রিটিশ বিজ্ঞানী সাদিয়া খানম। তিনি এমন একটি স্প্রে আবিষ্কার করেছেন যেটি প্রতিরোধ করতে পারে করোনাভাইরাস। যেকোনো বস্তুর সারফেসে স্প্রে করা হলে সেটি দুই সপ্তাহের জন্য থাকবে জীবাণুমুক্ত!

টানা দেড় বছর গবেষণার পর ‘ভলটিক’ নামের এই জীবাণুনাশক তৈরি করেন ছাব্বিশ বছর বয়সী সাদিয়া খানম। করোনা মহামারি মোকাবেলায় এই উদ্ভাবনকে বড় ধরনের আবিষ্কার হিসেবে গণ্য করা হচ্ছে। একইসঙ্গে ব্রিটেনের জাতীয় স্বাস্থ্য সেবা ব্যবস্থা এনএইচএসসহ বিভিন্ন কর্তৃপক্ষ পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর এর অনুমোদনও দিয়েছে।

জানা যায়, ব্রিটেনে করোনার প্রকোপ দেখা দেওয়ার পর সাদিয়া নিজের পিএইচডি গবেষণা স্থগিত রাখেন। এরপর উত্তর পশ্চিম ইংল্যান্ডের চেশায়ারে তাঁর বাবা রেস্তোরাঁয় এই ভাইরাসটি নিয়ে প্রাথমিক গবেষণা শুরু করেন। একপর্যায়ে তিনি একটি কার্যকরী ইকুয়েশন উদ্ভাবন করতে সক্ষম হন। তিনি যার নাম দিয়েছেন ‘ভলটিক’। যা সংক্রামক রোগজীবাণু বিনাশের একটি প্রক্রিয়া এবং উচ্চমানের সুরক্ষা দিয়ে থাকে।

বিশেষ একটি মেশিন দিয়ে স্প্রে করতে হয় এই তরল। এই পুরো প্রক্রিয়াটির নাম ‘ভলটিক’।

Yakub Group

যা বললেন সাদিয়া

সাদিয়া খানম বলেন, এই জীবাণুনাশক প্রক্রিয়ার একটি অংশ হচ্ছে জীবাণু ধ্বংস করে ফেলা। অর্থাৎ কোনো কিছুর পৃষ্ঠ বা সারফেসের ওপর যদি ভাইরাস থাকে এর সাহায্যে সঙ্গে সঙ্গেই এটি মেরে ফেলা যায়।

তিনি বলেন, এই স্প্রে চামড়া থেকে শুরু করে কাঠ, লোহা থেকে কাপড়— সবকিছুর ওপর কাজ করে।

আলোকিত চট্টগ্রাম

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm