বাঁশখালীতে পুলিশ-বিএনপি সংঘর্ষ : পঞ্চাশোর্ধ্ব জামিনে, চল্লিশের নিচে জেলে

বাঁশখালীতে পুলিশ-বিএনপি সংঘর্ষের মামলায় ১৪ জনকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। তবে দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আবু সুফিয়ানসহ ৩২ জনের জামিন আবেদন মঞ্জুর করা হয়েছে।

রোববার (২৭ নভেম্বর) জেলা ও দায়রা জজ আজিজ আহমেদ ভূঞার আদালত শুনানি শেষে এ আদেশ দেন।

কারাগারে পাঠানোরা হলেন- ইফতেখার হেলাল, দিদার, টিংকু দে, রিফাত, রিদওয়ান, আফসার, দেলোয়ার, মইনুদ্দিন, জসিম, ফোরকান, আনোয়ার হোসেন, জমির উদ্দিন ও জামাল।

আরও পড়ুন: চট্টগ্রামে পুলিশ-বিএনপি সংঘর্ষে ৩ মামলা—আসামি ১৩০০, ছেলের সঙ্গে আসামি সাবেক মন্ত্রীও

বিষয়টি নিশ্চিত করে আইনজীবী তৌহিদুল আলম মাসুদ আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, অভিযুক্ত ব্যক্তিরা উচ্চ আদালতের আদেশে এতদিন জামিনে ছিলেন। চলতি মাসের ৩ নভেম্বর জেলা ও দায়রা জজ আদালতে পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য থাকলেও তা পিছিয়ে আজ (রোববার) শুনানি হয়। এ সময় ৪৬ জন জামিনের জন্য আবেদন করেন। পঞ্চাশোর্ধ্ব ৩২ জনকে জামিন এবং ৪০ বছরের নিচে ১৪ জনকে কারাগারে পাঠানো হয়।

Yakub Group

মামলা সূত্রে জানা গেছে, গত ২৭ অক্টোবর জ্বালানি তেল ও নিত্যপণ্যের মূল্যবৃদ্ধি, লোডশেডিং এবং ভোলায় গুলিতে স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতার মৃত্যুর প্রতিবাদে প্রতিবাদ কর্মসূচির আয়োজন করে বিএনপি। এসময় উপজেলার কালিপুর ইউনিয়নে জাফরুল ইসলাম চৌধুরীর বাসভবনের সামনে থেকে মিছিল নিয়ে প্রধান সড়কে উঠতে গেলে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ হয় দলীয় নেতাকর্মীদের। সংঘর্ষে পুলিশসহ বিএনপির অন্তত ৪২ জন আহত হন।

এ ঘটনার পর সরকারি কাজে বাধা, পুলিশের ওপর হামলা ও বিস্ফোরক আইনের ধারায় তিনটি মামলা করে পুলিশ। মামলায় দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আবু সুফিয়ান, সাবেক মন্ত্রী মরহুম জাফরুল ইসলাম চৌধুরীসহ ৬৬ জনকে এজাহারভুক্ত এবং ৪০০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়।

আরএস/আরবি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

মন্তব্য নেওয়া বন্ধ।

ksrm