বদলির জন্য টাকা লাগবে, স্ত্রীকে মেরে রক্তাক্ত করে মামলা খেল পুলিশ

চট্টগ্রামে বদলির জন্য স্ত্রীর কাছ থেকে ৪ লাখ টাকা যৌতুক চেয়ে নির্যাতনের অভিযোগে এক পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন তাঁর স্ত্রী। সেইসঙ্গে মামলায় আসামি করা হয়েছে শ্বশুর ও স্বামীর এক বন্ধুকে।

মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) চট্টগ্রাম নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৭ এর বিচারক ফেরদৌস আরার আদালতে এ মামলা করা হয়।

মামলার আসামিরা হলেন- রাঙামাটির বাঘাইছড়ি দূরছড়ি বাজার এলাকার বিমল দত্তের ছেলে টিটু দত্ত, তাঁর বাবা বিমল দত্ত ও মারিশ্যার অজয় দাশ। বর্তমানে তাঁরা নগরের পাঁচলাইশ থানার শুলকবহর এলাকার এনজি টাওয়ারে বসবাস করেন। টিটু দত্ত নৌ পুলিশ বঙ্গবন্ধু ব্রিজ ফাঁড়িতে এসআই পদে কর্মরত আছেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ট্রাইব্যুানালের পিপি খন্দকার আরিফুল আলম আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, আদালত বিষয়টি আমলে নিয়ে চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতকে বিষয়টি অনুসন্ধানের জন্য আদেশ দিয়েছেন।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ২০১৫ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারি ধর্মীয় রীতি অনুসরণ করে পুলিশ সদস্য টিটুর সঙ্গে বিয়ে হয় বাদীর। তাদের সংসারে পাঁচ বছরের ছেলে ও পাঁচ মাসের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে। আসামি টিটু চট্টগ্রামে বদলির জন্য পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে ৪ লাখ টাকা দিতে হবে বলে স্ত্রীর কাছ থেকে যৌতুক দাবি করেন। টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করায় স্ত্রীর ওপর চালানো হয় নির্মম নির্যাতন।

Yakub Group

আরও পড়ুন: শিক্ষায় আমূল পরিবর্তনের নেপথ্যে প্রধানমন্ত্রীর দূরদর্শী নেতৃত্ব : আ জ ম নাছির

এরপর গত ২ আগস্ট বিকেল ৫টার দিকে নগরের শুলকবহরের বাসায় টিটু ও তাঁর বাবা বিমল দত্ত আবারও বাদীকে মারধর করেন। এসময় শরীরের বিভিন্ন স্থানে ক্ষতসহ চোখে আঘাত পান বাদী। পরদিন বাদীর বাবা এসে তার মেয়েকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতাল ও পরে একটি প্রাইভেট হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা করান। এছাড়া ২৮ আগস্ট বাদী চোখের চিকিৎসা চালিয়ে যান।

গত ৭ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় টিটু বাসায় এসে আবারও টাকা দাবি করেন স্ত্রীর কাছে। এসময় টাকা দিতে অসম্মত জানালে আবারও তাকে মারধর করে ফের বিয়ে ও তালাকের হুমকি দিয়ে টিটু বাইরে চলে যান। পরে স্ত্রী একে খান বাসস্টেশন থেকে স্বামী টিটুকে ফিরিয়ে আনতে গেলে সেখানেও তাকে জনসম্মুখে মারধর করা হয়। এসময় টিটুর সঙ্গে থাকা বন্ধু অজয়ও চলে যান। এরপর টিটুর স্ত্রী আবার চমেক হাসপাতালে গিয়ে চিকিৎসা নেন।

আরএস/আরবি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

মন্তব্য নেওয়া বন্ধ।

ksrm