বজ্রপাত—আনোয়ারায় ঝলসে গেল কিশোরের শরীর, টেকনাফেও ‘প্রাণহানি’ পানের বরজে

চট্টগ্রামের আনোয়ারা এবং কক্সবাজারের টেকনাফে বজ্রপাতে এক কিশোর ও এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছেন আরও দুজন। আনোয়ারায় ফুটবল খেলার সময় বজ্রপাতে মারা যান মো. ফোরকান (১৫)। টেকনাফে পানের বরজে কাজ করার সময় মারা যান কৃষক আলী আকবর (৫০)।

আনোয়ারা প্রতিনিধি জানান, শুক্রবার বিকালে উপজেলার রায়পুর ইউনিয়নে বজ্রপাতে মাদ্রাসা শিক্ষার্থী ফোরকানের মৃত্যু হয়। এ সময় আহত হন জাহানারা বেগম (৫৫) এবং মো. রাকিব (১৫) নামে দুজন। ঘটনার পর স্থানীয়রা হতাহতদের উদ্ধার করে আনোয়ারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক ফোরকানকে মৃত ঘোষণা করেন।

আহত জাহানারা বেগম ও রাকিবকে উন্নত চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। নিহত ফোরকান রায়পুর গ্রামের খতিরবাপের বাড়ির মোহাম্মদ ইউসুপের ছেলে এবং একটি হেফজখানার শিক্ষার্থী। আহত রাকিব একই এলাকার মো. নাছিরের ছেলে এবং জাহানার বেগম দক্ষিণ সরেঙ্গা এলাকার আলী আকবরের স্ত্রী।

আরও পড়ুন: গোসল করতে গিয়ে বজ্রপাতে লাশ যুবক

Yakub Group

প্রত্যক্ষদর্শী শেখ মোহাম্মদ জানান, শুক্রবার বিকালে ফোরকান ও রাকিব অন্যদের সঙ্গে খোর্দ্দগহিরা এলাকায় ফুটবল খেলছিল। ওই সময় হঠাৎ বৃষ্টি ও বজ্রপাত শুরু হলে আচমকা একটি বজ্রপাত ফোরকান ও রাকিবের শরীরে আঘাত হানে। এ সময় তাদের শরীর ঝলসে যায়।

আনোয়ারা হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাক্তার তাহা আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, বজ্রপাতে আহত অবস্থায় দুই কিশোর ও এক মহিলাকে হাসপাতালে নিয়ে আসেন তাদের স্বজনরা। আহতদের মধ্যে ফোরকান নামে এক কিশোর মারা গেছেন। অপর দুইজনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আরও পড়ুন: মধ্যরাতে বজ্রপাত—ধানক্ষেত পাহারা দিতে গিয়ে চাচা-ভাতিজার মৃত্যু

এদিকে কক্সবাজার প্রতিনিধি জানান, টেকনাফে উপকূলীয় ইউনিয়ন বাহারছরায় পানের বরজে বজ্রপাতে আলী আকবর (৫০) নামে এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার (১৫ অক্টোবর) সন্ধ্যায় বাহারছরা ৫নং ওয়ার্ডের হলবনিয়া মিয়ারপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

বাহারছরা ইউপি চেয়ারম্যান মাওলানা আজিজ উদ্দিন আলোকিত চট্টগ্রামকে জানান, কৃষক আলী আকবর শুক্রবার সন্ধ্যায় পানের বরজে কাজ করার সময় প্রচণ্ড শব্দে বজ্রপাতের ঘটনা ঘটে। এতে কৃষক আলী আকবর মাটিতে লুটিয়ে পড়লে স্থানীয়রা দ্রুত উদ্ধার করে শামলাপুর ‘মুয়াস’ হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এসি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm