লাখের দর্শনার্থী হাজারে নেমেছে বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে

বছরজুড়েই দর্শনার্থী থাকে কক্সবাজারের চকরিয়ার ডুলাহাজারা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কে। আর ঈদের বন্ধে তো রীতিমতো দর্শনার্থীর ঢল নামে। প্রতিবছর ঈদের ছুটিতে লাখো দর্শনার্থীর সমাগম হয় এখানে। কিন্তু এবারের ঈদুল আজহায় এর ব্যতিক্রম ঘটেছে। সংশ্লিষ্টরা সব ধরনের প্রস্তুতি নিলেও এবারের ঈদের ছুটিতে নামেনি দর্শনার্থীর ঢল! এ কারণে হতাশ সংশ্লিষ্টরা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ঈদের ছুটিতে স্থানীয়দের পাশাপাশি দেশের বিভিন্ন প্রান্তের দর্শনার্থী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কে ভিড় করে বিলুপ্তপ্রায় পশু-পাখি দেখতে। সপ্তাহজুড়ে কম করে হলেও লাখো দর্শনার্থীর সমাগম হতো এখানে। কিন্তু এবার তা হয়নি। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, অতিরিক্ত গরমের কারণেই আশানুরূপ দর্শনার্থীর সমাগম ঘটেনি।

সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, হাতেগোনা কিছু দর্শনার্থী পার্কে ভিড় জমিয়েছে। এদের প্রায় সবাই আশপাশের এলাকার। অথচ সাফারি পার্কজুড়ে রয়েছে বাঘ, সিংহ, উল্টো লেজী বানর, লাম চিতা, হনুমান, উল্লুক, কালো শিয়াল, জলহস্তী, ওয়াইল্ডবিস্ট, চিত্রা হরিণ, মায়া হরিণ, প্যারা হরিণ, মিঠা পানির কুমির, ময়ূর, বনমোরগ, বন্য শূকর, তারকা কচ্ছপ, বানরসহ অসংখ্য বন্যপ্রাণী।

আরও পড়ুন: ডুলাহাজারা সাফারি পার্ক—১৮ বছর পর হারিয়ে গেল সিংহরাজ

পার্কে আসা দর্শনার্থীর বেশিরভাগই শিশু। তারা বন্যপ্রাণী দেখার পাশাপাশি মনের সুখে উপভোগ করছেন নান্দনিক বৃক্ষরাজির ফাঁকে ফাঁকে উন্মুক্ত বিচরণ করা হরিণ, খরগোশ, বানর। আবার অনেকের আকর্ষণের কেন্দ্রে ছিল বাঘ, সিংহ, জেব্রা, জলহস্তী।

Yakub Group

এদিকে পার্কে ঘুরতে আসা বেশ কয়েকজন দর্শনার্থীর অভিযোগ, পার্কে নতুন কোনো পশু-পাখি যোগ হয়নি। আগে যা দেখেছি এখনও তাই রয়েছে। পার্কের চারপাশ ওপর থেকে দেখার জন্য একটি ১০তলার টাওয়ার থাকলে তাও বন্ধ করে রেখেছে পার্ক কর্তৃপক্ষ।

যোগাযোগ করা হলে সাফারি পার্কের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাজহারুল ইসলাম আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, ঈদের পরদিন থেকে বুধবার পর্যন্ত ১২-১৩ হাজারের মতো দর্শনার্থী এসেছে। যা অন্যান্যবারের তুলনায় খুবই কম।

আরও পড়ুন: ভেঙে ফেলেছে সীমানা প্রাচীর, বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে তাণ্ডব চালাচ্ছে একদল বন্য হাতি

বর্তমানে পার্কে ব্যাপক উন্নয়নকাজ চলছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, অতিরিক্ত গরমের কারণেও দর্শনার্থীর সংখ্যা কিছুটা কম। আশাকরি কয়েকদিনে আরও দর্শনার্থী বাড়বে।

এদিকে চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) চন্দন কুমার চক্রবর্তী বলেন, ঈদ উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্ক ছাড়াও অন্যান্য দর্শনীয় স্থানের পর্যটকের নিরাপত্তার জন্য পর্যাপ্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। পাশাপাশি ট্যুরিস্ট পুলিশও কাজ করছে। কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটার সম্ভাবনা নেই।

আলোকিত চট্টগ্রাম

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

মন্তব্য নেওয়া বন্ধ।

ksrm