বঙ্গবন্ধুর খুনিদের ‘শ্রদ্ধার সঙ্গে’ স্মরণ করলেন বাঁশখালীর নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী

বঙ্গবন্ধুর খুনিদের শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করলেন চট্টগ্রামের বাঁশখালী বাহারছড়া ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান ও এবারের ইউপি নির্বাচনে নৌকার মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী অধ্যাপক তাজুল ইসলাম।

বৃহস্পতিবার (২জুন) বাহারছড়া ইউনিয়নের বড়শিদীঘি পাড় এলাকায় নির্বাচনি পথসভায় তাঁর এমন আপত্তিকর বক্তব্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে।

তাজুল ইসলাম বাঁশখালী উপজেলা যুবলীগের সভাপতি এবং স্থানীয় এমপি মোস্তাফিজের ব্যক্তিগত সহকারী।

পথসভার বক্তব্যে তাজুল ইসলাম বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্বপরিবারে ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট হত্যা করেছিলেন, আমি তাদের শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করছি।’ তাঁর এমন বক্তব্যে এলাকাজুড়ে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

Yakub Group

এ বিষয়ে বাহারছড়া ইউনিয়নের ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতা আবুল হোসেন আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, ‘হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি হিসেবে যাকে আমরা সবসময় শ্রদ্ধা জানায় তাকে নিয়ে কথা সতর্কভাবে বলা উচিত ছিল। শেখ হাসিনার নৌকার প্রার্থী হয়ে তাঁর স্বপরিবারে হত্যাকারীদেরকে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করাটা নিঃসন্দেহে গর্হিত কাজ। আওয়ামী লীগের একজন কর্মী হিসেবে আমি দলীয় হাইকমান্ডের কাছে এসব বেফাঁস মন্তব্যকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি। তাজুল এমপির ঘনিষ্ঠজন, তাঁর বিরুদ্ধে নানা সময় অভিযোগ থাকলেও এমপির দাপটে তিনি পার পেয়ে যান।’

আরও পড়ুন: চট্টগ্রামে চলছে বুস্টার ডোজ, এক কেন্দ্রে দিনে ৩০০

এ ব্যাপারে জানার জন্য যোগাযোগ করা হলে তাজুল ইসলাম নির্বাচনি প্রচারণার কথা বলে কল কেটে দেন।

এদিকে বাহারছড়া ইউনিয়নের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী বখতিয়ার আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, আমার ইউনিয়নে আমার পক্ষে জোয়ার উঠেছে। আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, কৃষক লীগ থেকে শুরু করে সবাই আমার পক্ষে কাজ করছে। তাই তাজুল জামায়াত-বিএনপির ভোট পাওয়ার জন্য, তাদের খুশি করার জন্য জাতির জনকের খুনিদের শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করছে। তাজুল এমপির বলয়ে থাকায় নমিনেশন পেয়েছে, বেফাঁস কথা বলার পরেও সে ছাড় পাচ্ছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, আসলে এটা মুখ ফসকে বলেছে, নাকি ইচ্ছেকৃত ছিল সেটা পর্যবেক্ষণ করে ব্যবস্থা নেব। এখন যেহেতু নির্বাচনের সময় তাই সাংগঠনিকভাবে কোনো কিছু করা যাচ্ছে না। তবে নির্বাচনের পরে আমরা তাদের নিয়ে বসব। দোষী হলে পরবর্তীতে যেন তারা আর নমিনেশন না পায় সে ব্যবস্থা করব।

বাঁশখালীর সাংসদ মোস্তাফিজুর রহমানের কাছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি ব্যস্ততার অজুহাত দেখিয়ে কল কেটে দেন।

টিবি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

মন্তব্য নেওয়া বন্ধ।

ksrm