রান্না বসিয়ে দরজা খোলা রেখে কেন ফাঁসিতে ঝুলল কিশোরী?

সীতাকুণ্ডে রুনা আক্তার (১৪) নামে এক কিশোরীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তবে এ মৃত্যু নিয়ে রহস্য তৈরি হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৩ নভেম্বর) বিকালে বারৈয়াঢালা পূর্ব লালানগর গ্রাম জমাদ্দার বাড়ি থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়।

নিহত রুনা মিরসরাই উপজেলার ওয়াহেদপুর ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ড ছোট কমলদহ চৌকিদার বাড়ির মো. আলাউদ্দিনের মেয়ে।

আরও পড়ুন : প্রাইভেট পড়ে ঘরে ফিরে ফাঁসিতে ঝুলল কিশোরী

এদিকে এদিন সন্ধ্যায় নিহতের বাবা মো. আলাউদ্দিন বাদী হয়ে সীতাকুণ্ড মডেল থানায় অপমৃত্যু মামলা করেছেন।

Yakub Group

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, কিশোরী রুনা আক্তার লালানগর জমাদ্দার বাড়িতে মা ফুল বানুর সঙ্গে বসবাস করত। আজ (বৃহস্পতিবার) সকাল সাড়ে ৭টার দিকে মেয়েকে ঘরে একা রেখে প্রতিদিনের মতো চাকরিতে চলে যান মা। এরপর সকাল ১১টায় রুনাকে রান্না করতে দেখেন এলাকাবাসী। পরে তাকে নিজ ঘরে গলায় ওড়না জড়ানো অবস্থায় ঝুলতে দেখেন প্রতিবেশীরা। এরপর তার মা ও বাবা এবং পুলিশকে খবর দেওয়া হয়।

এ বিষয়ে বারৈয়াঢালার ইউপি চেয়ারম্যান রেহান উদ্দিন রেহান আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, জানা মতে মা ও বাবার মধ্যে বিচ্ছেদের কারণে মেয়েটি তান নানার বাড়িতে থাকত। তবে প্রকৃত ঘটনার বিষয়ে আমার জানা নেই ।

যোগাযোগ করা হলে সীতাকুণ্ড থানার ওসি তোফায়েল আহমেদ বলেন, রান্না বসিয়ে মেয়েটি কেন গলায় ফাঁস দিয়েছে তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে। এছাড়া আত্নহত্যার কথা বলা হলেও ঘরের দরজা খোলা ছিল। এর পেছনে অন্য কোনো কারণ থাকতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি।

ওসি আরও বলেন, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। রিপোর্ট আসার পর প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে।

এসএস/আরবি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

মন্তব্য নেওয়া বন্ধ।

ksrm