প্রেমের ফাঁদে—শারীরিক সম্পর্কের ভিডিও, ভয় দেখিয়ে চাঁদা দাবি ২ যুবকের

মহেশখালীতে প্রেমের ফাঁদ পেতে এক তরুণীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তুলে মো. আলমগীর (১৯) নামে এক যুবক। এরপর শারীরিক সম্পর্কের ভিডিওচিত্র ধারণ করে প্রতারণা করে সে।

আলমগীরের সঙ্গে ওই তরুণীর ভিডিও ধারণের খবর জেনে যায় অপর যুবক মো. হোসাইন (২৫)। সেও তরুণীর ভিডিও ধারণের কথা প্রতিবেশীদের জানিয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে ওই তরুণীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তুলে।

এ ঘটনায় মামলা দায়েরের পর মহেশখালী উপজেলার কালারমারছড়া ইউনিয়নের অফিসপাড়ার মো. রফিকের ছেলে মো. আলমগীর ও একই ইউনিয়নের মো. শাহ ঘোনা এলাকার মো. হোসাইনের ছেলে মো. আনোয়ারকে গ্রেপ্তার করেছে মহেশখালী থানা পুলিশ। ভিকটিম তরুণীর বাড়িও কালারমারছড়া ইউনিয়নে।

আরও পড়ুন: চকবাজারের কাউন্সিলর ‘সেই টিনু’ ছাড়া পেলেন জেল থেকে

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আশিক ইকবাল জানান, গত ২৬ অক্টোবর আলমগীর ও আনোয়ারকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতনসহ পর্নোগ্রাফি আইনে মামলা দায়ের করেন ভুক্তভোগী তরুণীর মা ছমুদা খাতুন। ২৭ অক্টোবর রাতেই কালারমারছড়া এলাকা থেকে পুলিশ অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করে।

Thai Food

মামলার অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, পূর্ব পরিচয়ের সুবাদে ওই তরুণীর সঙ্গে প্রেমের ফাঁদ পেতে সম্পর্ক গড়ে তোলেন আলমগীর। গত ১১ অক্টোবর দুপুরের দিকে তরুণীকে কৌশলে কক্সবাজারে হোটেলে নিয়ে যায় আলমগীর। মামলায় অভিযোগ করা হয়, সেখানে তরুণীকে ধর্ষণ করে আলমগীর। মোবাইল ফোনে এর ভিডিওচিত্রও ধারণ করে সে।

তরুণীর অভিযোগ, ওই ভিডিওচিত্র দেখিয়ে আলমগীর প্রতারণা শুরু করে। ভিডিও ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে ওই তরুণীর কাছে টাকা দাবিসহ শারীরিক সম্পর্ক অব্যাহত রাখে সে। আলমগীরের সহযোগী মো. আনোয়ার ভিডিওর কথা ফাঁস করে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে পুনরায় শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন এবং টাকার জন্য তরুণীকে চাপ দিতে থাকে। এতে রাজি না হওয়ায় ভিডিও অনলাইনে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেয় দুজনই। এরপর থানায় মামলা দায়ের করে।

পেঁয়াজের দাম—পাইকারিতে কমছে, খুচরা বাজারে আগুন

মহেশখালী থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আব্দুল হাই জানান, আসামি আলমগীর ওই তরুণীর সঙ্গে প্রেমের অভিনয় করে। একপর্যায়ে হোটেলে নিয়ে শারীরিক সম্পর্ক করে তা ভিডিও করে রাখে। ওই তরুণী পরে বিষয়টি জানতে পেরে ভয় পেয়ে যায়। এর ফায়দা লুটে তরুণীর পরিচিত বিবাহিত আসামি আনোয়ার। এ ঘটনায় মামলা হলে একদিনের মধ্যে দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

শাহাবউদ্দীন/এসি
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm