করোনার ছোবল—প্রধান শিক্ষিকার মৃত্যু, আক্রান্ত আরো ৩ শিক্ষক

যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে স্কুল খোলার পরও হাটহাজারীতে প্রধান শিক্ষিকার প্রাণ কেড়ে নিয়েছে করোনা। এছাড়া উপজেলায় আরো ৩ প্রাথমিক স্কুল শিক্ষক করোনার কবলে পড়েছেন। তবে তারা ঘরে আইসোলেশনে আছেন।

নিহতের নাম ফেরদৌসি বেগম। তিনি হাটহাজারীর ছিপাতলী আলী মোহাম্মদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা।

রোববার (২৬ সেপ্টেম্বর) নগরের জেনারেল হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

ফেরদৌসি বেগম পটিয়ার ধলঘাট ইউনিয়নের সমুরা গ্রামের মল্লাবাড়ির মো. আবদুল মাবুদ মল্লার স্ত্রী। তিনি দুই মেয়ে ও এক ছেলের জননী। ওইদিন রাতে জানাজা নামাজ শেষে তাকে দাফন করা হয়।

Thai Food

হাটহাজারীর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. শাহিদুল আলম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আরও পড়ুন : করোনায় মারা গেলেন চট্টগ্রাম নগর ছাত্রলীগের সাবেক সম্পাদকের স্ত্রী

জানা যায়, ফেরদৌসি বেগম ২০ সেপ্টেম্বর করোনায় আক্রান্ত হন। অন্য তিন শিক্ষকের মধ্যে উত্তর মাদার্শা মাহলুমা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা সঞ্চিতা বড়ুয়া ও উত্তর বুড়িশ্চর রশিদিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা স্মৃতি দত্ত করোনায় আক্রান্ত হন ১৮ সেপ্টেম্বর। ২২ সেপ্টেম্বর আক্রান্ত হন পৌরসভার হাটহাজারী মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা সাহিনা আক্তার। তার সংস্পর্শে আসায় ওই বিদ্যালয়ের ১৫ জনের করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে ২৬ সেপ্টেম্বর।

ইউএনও মো. শাহিদুল আলম বলেন, ‘ছিপাতলী আলী মোহাম্মদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা ফেরদৌসি বেগম করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। স্কুল খোলার পর ফেরদৌসি বেগম হঠাৎ অসুস্থ হয়ে যান। ওইদিন থেকে তাকে বিদ্যালয়ে আসতে নিষেধ করা হয়েছিল। বিদ্যালয়ে আসেননি। শিক্ষা অফিস থেকেও তাকে স্কুলে না আসার জন্য বলা হয়েছিল। তবে ওই স্কুলের আর কারো এখনো পর্যন্ত করোনা শনাক্ত হয়নি। অন্য স্কুলের আরও ৩ শিক্ষক করোনায় আক্রান্ত হয়ে হোম আইসোলেশনে আছেন।’

আলোকিত চট্টগ্রাম
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm