প্রতিরাতে ৩০০ রোজাদারের হাতে সেহেরি তুলে দেন ইয়াসির আরাফাত

রমজানে রাত হলেই জমজমাট হয়ে উঠে নগরের আলকরণের এক বাড়ি। গভীর রাতে দলে দলে লোক আসেন এখানে। ছিন্নমূল, পথচারীসহ এখানে আসা মানুষদের মূল পরিচয় তারা ‘গরিব’।

রমজানে প্রতি রাতে ওই বাড়িতে ৩০০ দুস্থের জন্য আয়োজন করা হয় সেহেরির। বিনে পয়সায় সেই সেহেরি খেতে অনেকদূর থেকেও আসেন দুস্থ মানুষ। রমজানজুড়ে এমনই আয়োজন করে চলেছেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহসম্পাদক ইয়াসির আরাফাত।

নগরের আলকরণের নুর আহমদ স্কুলের পাশের বাড়িতে চলে সেহেরির এ আয়োজন। সদরঘাট হাফিজিয়া ও আলকরণ ইসমাইলিয়া মাদ্রাসার ৭১ জন এতিমও সেহেরি খান এখানে।

এ ব্যাপারে আয়োজক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহসম্পাদক ইয়াসির আরাফাত আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, মানুষ যেখানে সেখানে ইফতার করতে পারলেও সেহেরি খরতে পারেন না। যারা অসহায়, ছিন্নমূল তারা সেহেরি খাওয়া নিয়ে খুব কষ্টে পড়েন। আমি কেবল আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য মানুষের জন্য সেহেরির আয়োজন করেছি।

আরও পড়ুন: শিশু নুসরাতকে মায়ের কোলে ফিরিয়ে দিল পুলিশ

তিনি বলেন, এখানে যেকেউ এসে সেহেরি খেতে পারবেন। প্রতি রোজায় প্রায় ৩০০ মানুষের জন্য সেহেরির ব্যবস্থা করি। প্রথম রোজা থেকে এই আয়োজন চলছে, শেষ রোজা পর্যন্ত চলবে।

এখানে সেহেরি খেতে আসা আবদুল ও মফিজ বলেন, আমরা দিনমজুর। ইফতার কোনোভাবে করতে পারলেও সেহেরি খেতে পারি না। তাই খেয়ে না খেয়ে রোজা রাখতে হয়। এখানে সেহরি খেয়ে নিয়মিত রোজা রাখছি। আয়োজকের জন্য অনেক অনেক দোয়া করি।

এসআই/আলোকিত চট্টগ্রাম

মন্তব্য নেওয়া বন্ধ।

ksrm