পরিবারের দাবি ‘খুন’—পুলিশ বলছে ‘চুরি করতে গিয়ে মৃত্যু’

আনোয়ারায় এক যুবকের ‘মৃত্যু’ নিয়ে রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে। পরিবার, পুলিশ ও স্থানীয়দের কাছ থেকে পাওয়া গেছে ভিন্ন ভিন্ন তথ্য।

রোববার (১৯ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে ৬টায় উপজেলার বারশত ইউনিয়নের বখতিয়ারপাড়ার পাহাড়তলী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত যুবকের নাম মো. ইমন (২২)। তিনি চাতরী ইউনিয়নে বেলচুড়া সুজামল্লাপাড়ার মৃত আবদুল করিমের ছেলে।

আরও পড়ুন: ভিডিও ফুটেজে দেখা গেল মোটরসাইকেল চুরি, পুলিশ বলছে হারিয়ে গেছে!

এ ঘটনায় নিহতের ভাই খোরশেদ আলম আনোয়ারা থানায় অভিযোগ করেছেন। খোরশেদের জানান, ইমন পেশায় একজন রাজমিস্ত্রী। তার শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তার ভাইকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে।

পুলিশ বলছে, নিহত ইমন একজন পেশাদার চোর। বারশত ইউনিয়নের পাহাড়তলী এলাকায় চুরি করতে গিয়ে ছাদ থেকে পড়ে সে গুরুতর আহত হয়। এরপর হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।

এদিকে ঘটনাস্থল পরির্দশন করেছেন আনোয়ারা থানার পুলিশ পরির্দশক ওসি ওমর সাঈদ।

স্থানীয় বাসিন্দা মো. জাবেদ জানান, আমি ফজরের নামাজ পড়ে আসছিলাম। সড়কের দক্ষিণ পাশে এক যুবককে আহত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয় ইউপি সদস্য জমির উদ্দিনকে বিষয়টি ফোন জানালে তিনি দ্রুত ঘটনাস্থলে আসেন। পরে ওই যুবককে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাই। সেখান থেকে তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়।

স্থানীয় ইউপি সদস্য জমির উদ্দিন জানান, সড়কে এক যুবক অজ্ঞান অবস্থায় পড়ে আছে- এমন খবরে সকাল সাড়ে ৭টায় আমি ঘটনাস্থলে ছুটে যাই। পরে তাকে উদ্ধার করে গ্রাম পুলিশের সহযোগিতায় হাসপাতালে পাঠায়। রাতে জানতে পারি ওই যুবক মারা গেছে।

আরও পড়ুন: ‘রহস্যজনক চুরি’—জিনিসপত্রের সঙ্গে জমির দলিলও নিয়ে গেল চোরের দল

জানতে চাইলে আনোয়ারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসএম দিদারুল ইসলাম সিকদার আলোকিত চট্টগ্রাম বলেন, নিহত যুবক একজন পেশাদার চোর। তাকে চুরির মামলায় আগেও হাজতে পাঠানো হয়েছিল।

ওসি আরও জানান, ঘটনার দিন বারশত ইউনিয়নের পাহাড়তলী এলাকায় একটি বাড়িতে চুরি করতে গিয়ে ছাদ থেকে পড়ে সে গুরুতর আহত হয়। পরে হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। পুলিশ ঘটনাস্থল পরির্দশন করেছে। তবে এ ঘটনায় কেউ জড়িত থাকলে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ইমরান/আরবি

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm