‘পুলিশ খুন’ করে মাজারের ‘ফকির সেজেই’ পালিয়ে ছিল খুনি

চট্টগ্রামে পুলিশ সদস্যকে গাড়িচাপা দিয়ে মারা মাইক্রোবাস চালকের হেলপার মো. রুবেলকে (২৫) গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

শনিবার (২৮ আগস্ট) রাতে নগরের কোতোয়ালি থানার আমানত শাহ মাজার এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তার রুবেল কক্সবাজারের চকরিয়ার ডুলাহাজরার ২নম্বর ওয়ার্ড মালুমঘাট পূর্ব ডোমখালী এলাকার বাহাদুর ফকিরের ছেলে।

আরও পড়ুন: ‘ভিক্ষুক সেজে’ যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি ধরল কোতোয়ালীর পুলিশ  

পুলিশ জানায়, পুলিশ সদস্যের মৃত্যু পর থেকে গ্রেপ্তার যুবক শাহ আমানতের মাজারে এসে আত্মগোপন করেন এবং নগরের অন্যান্য মাজারেও ঘুরে ঘুরে ভাসমানভাবে থাকছিলেন।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে রুবেল পুলিশকে জানায়-ঘটনার পর পালিয়ে শাহ আমানত মাজারে এসে আত্মগোপন করে সে।

গত ৫ আগস্ট সাতকানিয়া উপজেলাধীন চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের বিওসি’র মোড় এলাকায় দায়িত্বপালনকালে একটি মাইক্রোবাস দুই পুলিশ কনস্টেবেলকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলে কনস্টেবল রাব্বি নিহত হন। আহত হন অপরজন।

এ ঘটনায় দোহাজারী হাইওয়ে থানার উপ-পরিদর্শক মো.ফারুক বাদী হয়ে ঘটনার দিন রাতে চালক-হেলপারসহ ৩ জনকে আসামি করে সাতকানিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

আরও পড়ুন: ‘ওঁৎ পেতে ফাঁদ’—ফ্লাইওভারেই, দলবেঁধে ছিনতাই ওদের রুটিন ওয়ার্ক

পরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গত শনিবার রাতে সাতকানিয়া থানার উপপরিদর্শক জাকির হোসেনের নেতৃত্বে অভিযানে নগরের আমানত শাহ মাজার এলাকা থেকে হেলপার রুবেলকে গ্রেপ্তার করা হয়।

সাতকানিয়া থানার ওসি মো. আনোয়ার হোসেন আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, পুলিশ কনস্টেবল রাব্বি নিহতের ঘটনায় গ্রেপ্তার আসামি রুবেলকে আজ (রোববার) সকালে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

দিদারুল/আরবি
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm