পাহাড় কেটে হাতেনাতে ধরা ইউপি মেম্বার

লামায় অবৈধভাবে পাহাড় কাটার অপরাধে সীতারঞ্জন বড়ুয়া (৪০) নামে এক ইউপি মেম্বারকে আটক করেছে পুলিশ। এ সময় জব্দ করা হয়েছে পাহাড় কাটার কাজে ব্যবহৃত স্কেভেটর।

রোববার (১৭ এপ্রিল) সকাল ৬টায় উপজেলার রূপসীপাড়া ইউনিয়ন থেকে তাকে আটক করা হয়। এরপর তাঁর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে পুলিশ।

আরও পড়ুন: পাহাড় কাটা : ১৩ ব্যক্তিকে পরিবেশ অধিদপ্তরের জরিমানা

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মামলায় দুজনকে ও অজ্ঞাত ৮/১০ জনকে আসামি করা হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, লামার রূপসীপাড়া ইউনিয়নের অংহ্লা পাড়া থেকে মোহাম্মদপাড়া যাওয়ার একটি রাস্তায় অনুমতি ছাড়া স্কেভেটর দিয়ে বিশাল একটি পাহাড় কেটে ফেলে ইউপি মেম্বার সীতারঞ্জন বড়ুয়াসহ আরও কয়েকজন। তারা পাহাড় কেটে এলাকার কয়েকজনের কাছে মাটিও বিক্রি করেন। এ ঘটনা নিয়ে আলোচনা-সমাচোলনা শুরু হয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। পরে তা ভাইরাল হয়। এরপর লামা থানা পুলিশ পাহাড় কাটা বন্ধে অভিযানে গিয়ে ঘটনাস্থল থেকে হাতেনাতে আটক করে সীতারঞ্জন বড়ুয়াকে।

আরও পড়ুন: সাতসকালে পাহাড় কাটছিল ২ যুবক, ধরলেন ম্যাজিস্ট্রেট

এ বিষয়ে জানতে চাইলে লামা থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শহীদুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, পাহাড় কাটার অপরাধে সীতারঞ্জন বড়ুয়া (৪০) নামে এক ইউপি মেম্বারকে আটক করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে থানায় মামলা করা হয়েছে। মামলায় অজ্ঞাত আরও ৮-১০ জনকে আসামি করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, পাহাড় কাটা অপরাধ। পরিবেশ ও প্রকৃতি রক্ষায় সরকার বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। যারা অবৈধভাবে পাহাড় কাটবে তাদের ছাড় দেওয়া হবে না৷ এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।

ইলিয়াছ/আরবি

মন্তব্য নেওয়া বন্ধ।

ksrm