পারকি সৈকতে আটকে পড়া ‘ক্রিস্টাল গোল্ড’ জাহাজ কাটা আবার বন্ধ

আনোয়ারা উপজেলার পারকি সৈকতে আটকে পড়া ‘ক্রিস্টাল গোল্ড’ নামের বিশাল জাহাজটি কাটার কাজ শুরুর একদিন পর আবারও বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

রোববার (১২ ডিসেম্বর) জাহাজকাটা বন্ধের নির্দেশ দেন মনিটরিং কমিটির সভাপতি আনোয়ারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইউএনও শেখ জোবায়ের আহমেদ।

মনিটরিং কমিটির অভিযোগ ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ফোর স্টার এন্টারপ্রাইজ না জানিয়ে জাহাজ কাটা শুরু করেছে।

আরও পড়ুন: ‘বিপদসংকেত’ কক্সবাজার—সমুদ্রসৈকতে চোখের পলকেই ৪ মৃত্যু

ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি জানান, জাহাজ কাটা শুরু করার কথা ছিল সোমবার। কিন্তু শনিবার থেকে শ্রমিকরা কাটা শুরু করায় কাজ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

এর আগে ২০১৯ সালের ৬ জানুয়ারি পরিবেশ অধিদপ্তরের অনুমতি ছাড়া মেয়াদোত্তীর্ণ জাহাজ কাটার অভিযোগে ঠিকাদরি প্রতিষ্ঠান ফোর স্টার এন্টারপ্রাইজকে ২ কোটি টাকা জরিমানা করা হয়। এরপর থেকে বন্ধ ছিল কাজ।

পরিবেশ অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, ২০১৭ সালের ৩০ মে ঘূর্ণিঝড় মোরার আঘাতে ‘ক্রিস্টাল গোল্ড’ জাহাজটি পারকি সমুদ্রসৈকত চরে আটকা পড়ে। দীর্ঘদিন সৈকতে থাকার কারণে পারকি সৈকতের আধা কিলোমিটার অংশে পলি জমে গাছ উপড়ে পড়ে। যে কারণে জাহাজটি সরানোর দাবি জানায় বিভিন্ন সংগঠন। কিন্তু মামলার কারণে জাহাজটি নিয়ে বিপাকে পড়তে হয়।

২০১৯ সালের ৬ জানুয়ারি পরিবেশ অধিদপ্তরের অনুমতি ছাড়া মেয়াদোত্তীর্ণ জাহাজ কাটার অভিযোগে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ফোর স্টার এন্টারপ্রাইজকে ২ কোটি টাকা জরিমানা করা হয়। এরপর জাহাজ কাটা বন্ধ ছিল। পরে পরিবেশ অধিদপ্তরের অনুমতি ও শর্ত মেনে জাহাজটি কাটার অনুমতি পায় একই প্রতিষ্ঠান। এ সংক্রান্ত ৭ সদস্যের একটি কমিটিও করে দেয় পরিবেশ অধিদপ্তর। কমিটিতে আনোয়ারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শেখ জোবায়ের আহমদকে সভাপতি করা হয়।

গত শনিবার মনিটরিং কমিটিকে না জানিয়ে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ফোর স্টার এন্টারপ্রাইজ জাহাজ কাটা শুরু করলে রোববার কমিটির সভাপতি ইউএনও শেখ জোবায়ের আহমেদ জাহাজ কাটা বন্ধ রাখার নির্দেশ দেন।

আরও পড়ুন: ‘লঙ্কাকাণ্ড’—সমুদ্রসৈকতে ঘোড়ার মৃত্যু নিয়ে মালিক-কর্তৃপক্ষের লুকোচুরি

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ফোর স্টার এন্টারপ্রাইজের প্রতিনিধি মো. আমজাদ হোসেন আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, পরিবেশ অধিদপ্তর বিভিন্ন শর্তে জাহাজ কাটার অনুমতি দেয়। এই সংক্রান্ত একটি মনিটরিং কমিটি গঠন করা হয়। জাহাজটি মনিটরিং কমিটিকে অবহিত করে সোমবার থেকে কাটার প্রস্ততি ছিল। এ কাজে নিয়োজিত শ্রমিকরা গত শনিবার থেকে সামনের অংশ কাটা শুরু করে। যার কারণে মনিটরিং কমিটির সভাপতি জাহাজ কাটা বন্ধ রাখতে বলেছেন।

যোগাযোগ করা হলে ইউএনও শেখ জোবায়ের আহমেদ বলেন, পারকি সমুদ্রসৈকতে আটকে পড়া এমভি ক্রিস্টাল গোল্ড জাহাজটি বিভিন্ন শর্তে কাটার অনুমতি প্রদান করেছে পরিবেশ অধিদপ্তর। এই সংক্রান্ত মনিটরিং কমিটিতে আমাকে সভাপতির দায়িত্ব দেওয়া হয়। কিন্তু মনিটরিং কমিটিকে না জানিয়ে গত শনিবার ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান জাহাজ কাটা শুরু করে। রোববার (১২ ডিসেম্বর) বিষয়টি জানার পর জাহাজ কাটা বন্ধ রাখার নির্দেশ প্রদান করি।

তিনি আরও বলেন, আগামী ১৬ ডিসেম্বরের পর মনিটরিং কমিটির সভা হবে। এরপর পরবর্তী নির্দেশনা দেওয়া হবে।

ইমরান/আরবি

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm