নতুন আদেশ—ভার্চুয়ালিও চালানো যাবে নিম্ন আদালত, রোববার থেকে

করোনাভাইরাস সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় দেশের সব দেওয়ানি ও ফৌজদারি আদালত শারীরিক উপস্থিতির পাশাপাশি ভার্চুয়াল পদ্ধতিতেও পরিচালিত হবে।

রোববার (২৩ জানুয়ারি) থেকে দুভাবেই আদালত চালানো যাবে বলে উচ্চ আদালত নির্দেশনা দিয়েছেন।

শনিবার (২২ জানুয়ারি) প্রধান বিচারপতির নির্দেশক্রমে সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল আলী আকবর স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তির কপি নিম্ন আদালতে পাঠানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, করোনাভাইরাস সংক্রমণজনিত উদ্ভূত পরিস্থিতিতে দেশের সব অধঃস্তন দেওয়ানি ও ফৌজদারি আদালত এবং ট্রাইব্যুনালের বিচারক দেওয়ানি ও ফৌজদারি মোকদ্দমা/মামলায় প্রযোজ্য ক্ষেত্রে শারীরিক উপস্থিতিতে অথবা ‘আদালত কর্তৃক তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার আইন, ২০২০’ এবং এই কোর্ট কর্তৃক জারি করা এতদসংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি অনুসরণপূর্বক তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহার করে ভার্চুয়াল উপস্থিতির মাধ্যমে সব ধরনের বিচার কার্যক্রম পরিচালনা করবেন।

আরও পড়ুন: চট্টগ্রাম আদালতের ৩ বিচারক করোনায় আক্রান্ত

প্রয়োজনীয় সুরক্ষামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করে শারীরিক উপস্থিতিতে অধঃস্তন দেওয়ানি ও ফৌজদারি আদালত এবং ট্রাইব্যুনালে সব ধরনের মামলা দায়ের করা যাবে।

বিচারক শারীরিক উপস্থিতিতে সাক্ষ্যগ্রহণ কার্যক্রম সম্পন্ন করবেন। ফৌজদারি মামলায় অভিযুক্ত ব্যক্তি/ব্যক্তিরা অধঃস্তন ফৌজদারি আদালত এবং ট্রাইব্যুনালে শারীরিক উপস্থিতিতে আত্মসমর্পণ আবেদন দাখিল করতে পারবেন।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, সামাজিক ও শারীরিক দূরত্ব বজায়সহ স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালন এবং সুরক্ষামূলক ব্যবস্থা গ্রহণে জেলা ও দায়রা জজ/মহানগর দায়রা জজ এবং চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট/চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সংশ্লিষ্ট জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সঙ্গে আলোচনা করে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন।

ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে বিচার কার্যক্রম পরিচালনার ক্ষেত্রে গাউন পরিধানের বাধ্যবাধকতা নেই।

আদেশ প্রতিপালনে কোনরূপ সমস্যা দেখা দিলে প্রয়োজনে সুপ্রীমকোর্টের নির্দেশনা চাওয়া হবে।

এই আদেশ অবিলম্বে কার্যকর ও পরবর্তী নিদের্শ না দেওয়া পর্যন্ত বলবৎ থাকবে।

প্রসঙ্গত, ১৯ জানুয়ারি থেকে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ ও হাইকোর্ট বিভাগের বিচারকাজ ভার্চুয়ালি পরিচালিত হচ্ছে।

আলোকিত চট্টগ্রাম

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm