সীতাকুণ্ড পাহাড়ে নারীকে ধর্ষণের পর খুন, জসিম ঝুলবে ফাঁসিতে

সীতাকুণ্ডে এক নারীকে ধর্ষণের পর খুনের ঘটনায় জসিম উদ্দিন (৫০) নামে এক আসামিকে ফাঁসি দেওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে জরিমানা করা হয়েছে এক লাখ টাকা।

অপরাধ প্রমাণ না হওয়ায় বেকসুর খালাস দেওয়া হয়েছে দুই আসামিকে। এছাড়া জেলহাজতে মারা যাওয়ায় বিচার কার্যক্রম থেকে অব্যাহতি পান আরও দুই আসামি।

বৃহস্পতিবার (২০ জানুয়ারি) দুপুরে চট্টগ্রামের চতুর্থ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের জেলা জজ মো. জামিউল হায়দার এ রায় দেন।

রায়ে মো. জসিম উদ্দিন বাপ্পিকে (৫০) ফাঁসির দণ্ড দেওয়া হয়। খালাস দেওয়া হয় আসামি আইয়ূব খান (৩৬) ও শরীফ আহম্মদকে (৫০)। এর মধ্যে আইয়ূব খান ঘটনার পর থেকে পলাতক রয়েছেন। তবে রায়ের সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন জসিম ও শরীফ।

আরও পড়ুন: স্ত্রীকে খুন করে যাবজ্জীবন জেলে থাকতে হবে আলেক শাহকে

এদিকে বিচার চলাকালে মামলার দুই আসামি সরওয়ার আলম সেরু (৫৫) ও আব্দুল মোতালেব লিটন (৪২) জেলহাজতে মারা যান। তাই তাদের তাদের বিচার কার্যক্রম অব্যাহত দেওয়া হয়।

আদালত সূত্রে জানা যায়, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ৯(৩) ধারায় ধর্ষণ ও খুনের অভিযোগ প্রমাণ হওয়ায় আসামি জসিমকে মৃত্যুদণ্ডের পাশাপাশি এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। অপরাধে প্রমাণ না হওয়ায় খালাস পান আইয়ুব খান ও শরীফ আহমদ। মামলার চার্জশিটভুক্ত দুই আসামি সরওয়ার আলম ও আবদুল মোতালেব বিচার চলাকালে কারাগারে অসুস্থ হয়ে মারা যান।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী নিখিল কুমার নাথ বিষয়টি নিশ্চিত করে আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, ২০১৭ সালের ২৯ মার্চ বিকেলে সীতাকুণ্ডের কুমিরা এলাকায় পাহাড়ে কাঠ কুড়াতে গিয়ে নিখোঁজ হন স্থানীয় এক নারী। পরদিন সকালে কুমিরা রেলস্টেশনের কাছের একটি পাহাড়ে তার মরদেহ পাওয়া যায়। মরদেহে আঘাতের চিহ্ন মিলে। পরে ময়নাতদন্তে ধর্ষণের পর খুন করার বিষয়টি প্রমাণ হয়। ঘটনার পর নিহতের মেয়ে বাদী হয়ে হত্যা মামলা দায়ের করেন।

তিনি আরও বলেন, ঘটনার সঙ্গে পাঁচজনের সম্পৃক্ততার প্রমাণ পেয়ে সীতাকুণ্ড থানা পুলিশ বিভিন্ন সময় চারজনকে গ্রেপ্তার করে। অপর আসামি আইয়ুব খান ঘটনার পর থেকে পলাতক ছিলেন। আসামি জসীম উদ্দীন বাপ্পি ধর্ষণ ও খুনের দায় স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। রাষ্ট্রপক্ষের ১৫ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে বৃহস্পতিবার জসিমকে দোষী সাব্যস্ত করে রায় দেন বিচারক।

এএইচ

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm