ধর্ষণ মামলা খেল ইউপি চেয়ারম্যান, তদন্ত গেল পিবিআই’র হাতে

বান্দরবানের লামা উপজেলার আজিজনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিনের বিরুদ্ধে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে মামলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৩০ সেপ্টেম্বর) সকালে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মামলাটি করেন ইয়াছমিন আকতার নামে এক নারী। তার বাড়ি লামার আজিজনগর ইউনিয়নে।

এদিকে মামলাটি আমলে নিয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক জেলা ও দায়রা জজ মো. সাইফুর রহমান সিদ্দীক পিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।

আরও পড়ুন: ছাত্রের বড় বোনকে ধর্ষণ—মোয়াজ্জেম গ্রেপ্তার

Thai Food

মামলার বাদি ইয়াছমিন আকতার জানান, জায়গা-সম্পত্তির বিরোধ নিয়ে চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিনের কাছে বিচার চাইলে তিনি ২০২০ সালের ২ অক্টোবর বিকাল ৪টায় বোর্ড অফিসে হাজির হতে বলেন। ওইদিন দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষার পর গ্রাম পুলিশ সাইফুল ইসলামের কাছে (৩৫) চেয়ারম্যান আসবেন কিনা জানতে চেই। তখন তিনি চেয়ারম্যান সঙ্গে যোগাযোগ করে বসতে বলেন।

তিনি আরও জানান, ওইদিন রাত ৮টার সময় চেয়ারম্যান নিজের ব্যক্তিগত কক্ষে আমাকে ডেকে নেন। তখন আমার স্বামী সঙ্গে যেতে চাইলে তাকে বাইরে অপেক্ষা করতে বলেন। এ সময় রুমে থাকা মোস্তাক আহামদ ও সাইফুল ইসলামকে বাইরে অপেক্ষা করতে বলেন। রুমে একা থাকার সুযোগে তিনি আমার সঙ্গে অশ্লীল কথাবার্তা বলা শুরু করেন। একপর্যায়ে আমার স্পর্শকাতর স্থানে হাত দেন। পরে আমাকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন। এ সময় আমার চিৎকার শুনে স্বামী ও ভাসুর রুমে ঢুকতে চাইলে চেয়ারম্যান লোহার রড় দিয়ে আমার বাম হাতে আঘাত করেন। চেয়ারম্যানের সঙ্গে থাকা মোস্তাক ও সাইফুল রুমে ঢুকে আমার গলাচিপে ধরেন। পরে আমি এবং আমার স্বামী চলে আসার সময় চেয়ারম্যান খুন করে লাশ গুম করার হুমকি দেন।

আরও পড়ুন: দ্বিতীয়বার ধর্ষণের পর মুখ খুলল প্রমি, আটকে গেল বুলু

ঘটনার পর আমি লামা থানায় গেলে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মামলা না নিয়ে আমাকে ঘুরাতে থাকেন। হাসপাতালের কাগজপত্র ফেরত না পাওয়ার কারণে মামলা করতে বিলম্ব হয়। পরে থানা থেকে চিকিৎসার ব্যবস্থাপত্র ফেরত পাওয়ার পর আদালতে এসে মামলা দায়ের করি।

সানি/আরবি
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm