দুই স্কুলছাত্রীর নিঃশ্বাস কেড়ে নিয়ে ঘাতক চালক লুকিয়ে ছিল অক্সিজেনে

মিশু আক্তার ও নিশামনি দুই স্কুলছাত্রী। পড়াশোনায় ছিলেন মেধাবী। পড়াশোনার পাশাপাশি তারা দুজন ছিল খুব ভালো বন্ধু। একজনের স্বপ্ন ডাক্তার হওয়া, আরেকজনের স্বপ্ন আইনজীবী হওয়া। স্বপ্ন আলাদা হলেও মৃত্যু তাদের আলাদা করতে পারেনি। স্কুলে অ্যাসাইনমেন্ট জমা দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে বেপরোয়া জিপ কেড়ে নেয় দুই বান্ধবীর প্রাণ।

বুধবার (৯ ফেব্রুয়ারি) বেলা ১২টার দিকে ফটিকছড়ি বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন ফেলাগাজী এলাকায় পুলিশের ধাওয়া খেয়ে পালাতে গিয়ে বেপরোয়া জিপ চাপা দেয় তিন স্কুলছাত্রীকে। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যায় মিশু আক্তার ও নিশামনি।

আরও পড়ুন: চট্টগ্রামে পুলিশের ধাওয়া খেয়ে জিপ চাপা দিল ৩ স্কুলছাত্রীকে, নিহত ২

রোববার (১৩ ফেব্রুয়ারি) রাতে বায়েজিদ অক্সিজেন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ঘাতক চালক মো. আলাউদ্দিনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তার মো. আলাউদ্দিনের বাড়ি ফটিকছড়ি থানার ভূজপুর এলাকায়।

Yakub Group

নিহত মিশু আক্তার (১৮) ফটিকছড়ি দক্ষিণ পাইন্দংয়ের আকতারের বাড়ির আবুল বশরের মেয়ে এবং নিশামনি (১৭) একই এলাকার মো. লোকমানের মেয়ে। তারা দুজন ফটিকছড়ি হাইদচকিয়া বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের ২০২২ সালের এসএসসি পরীক্ষার্থী ছিল।

মিশু ও নিশামনির বাবা আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, অদক্ষ ও বেপরোয়া চালকদের কারণে সড়কে আর কোনো মা-বাবার বুক যেন খালি না হয়। ঘাতক জিপ চালক ও হেলপারের সর্বোচ্চ শাস্তি চাই।

আরও পড়ুন: গাড়িচাপায় পরিকল্পিত খুন কিনা জানতে ঘাতক চালককে রিমান্ডে নেবে পুলিশ

এ বিষয়ে ফটিকছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রবিউল হোসেন আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, নগরের বায়েজিদ অক্সিজেন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ঘাতক জিপ চালক আলাউদ্দিনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গাড়ির হেলপারকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

এএইচ/আরবি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm