বেপরোয়া বাসে নারী—ট্রেনে অজ্ঞাত যুবক নিহত

সীতাকুণ্ডে পৃথক দুর্ঘটনায় এক নারীসহ দুইজন নিহত হয়েছে।

শনিবার (৭ আগস্ট) উপজেলার পৌরসভা এলাকা ও বাড়বকুণ্ড ইউনিয়নে দুর্ঘটনা দুটি ঘটে।

নিহত নারীর নাম- শেফালী রানী দাশ (৩৭)। তিনি সৈয়দপুর ইউনিয়নের কেদারখীল গ্রামের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের রেবতী দাশ বাড়ির বিনোদ কুমারের স্ত্রী। তবে অপরজনের পরিচয় পাওয়া যায়নি।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শনিবার বিকালে আনুমানিক সাড়ে ৩টার সময় শেফালী রানী দাশ ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের রাস্তা পার হচ্ছিলেন। এ সময় দ্রুতগামী একটি গাড়ি চাপা দিলে গুরুতর আহত হন তিনি। স্থানীয়রা উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

চমেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির এসআই আলাউদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করে আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, শেফালী নামের এক নারীকে হাসপাতালে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তিনি সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন।

অপরদিকে উপজেলার বাড়বকুণ্ড ইউনিয়ন এলাকায় শনিবার সকালে ঢাকা-চট্টগ্রাম রেললাইনে এক যুবকের লাশ দেখতে পান স্থানীয় বাসিন্দারা। পরে রেলওয়ে পুলিশকে খবর দিলে সীতাকুণ্ড জিআরপি ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই মো. তোফাজ্জল হোসেন সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছান। পরে লাশের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি শেষে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে এসআই তোফাজ্জল হোসেন আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, যুবকটি শুক্রবার গভীর রাত থেকে শনিবার সকাল ১০টার মধ্যে কোনো এক সময় হয়তো ট্রেন থেকে পড়ে গিয়ে কাটা পড়েছে। তার বয়স ৩০-৩৫ হবে। পরনে নীল রঙের একটি জিন্সের প্যান্ট ও ছাই রঙের শার্ট ছিল। আমরা লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছি। তবে পরিচয় এখনো জানা যায়নি।

সালাউদ্দিন/ডিসি
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm