টিকা নিতে না পারা শিক্ষার্থীরা ছুটছে সিজিএসে

বিভিন্ন কারণে টিকা নিতে না পারা শিক্ষার্থীদের টিকার ব্যবস্থা করেছে চট্টগ্রাম জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়। বিশেষ ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে নগরের চট্টেশ্বরী রোডের সিজিএসে (চট্টগ্রাম গ্রামার স্কুল) এ টিকা দেওয়া হচ্ছে।

টিকা গ্রহণে শিক্ষার্থী পাওয়া সাপেক্ষে কেন্দ্রটির কার্যক্রম চলমান থাকবে। ১২ বছর পূর্ণ হলেই নেওয়া যাবে টিকা।

আরও পড়ুন: চট্টগ্রামের ৬ স্পটে শিক্ষার্থীদের দ্বিতীয় ডোজ টিকা, ভিড় এড়াতে সময় নির্ধারণ

রোববার (১৩ মার্চ) সকাল ৯টা থেকে সিজিএস স্কুলের ৩টি বুথে শুরু হয় টিকাদান কর্মসূচি। এর আগে থেকেই সেখানে ভিড় করে টিকা নিতে না পারা শিক্ষার্থীরা।

টিকা নিতে শিক্ষার্থীদের লম্বা লাইন-আলোকিত চট্টগ্রাম

সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে জানা গেছে, প্রথম দিন জেলা শিক্ষা অফিসের তালিকা অনুযায়ী ১৫টি স্কুলের প্রায় ২ হাজার শিক্ষার্থীকে টিকা দেওয়া হবে। এছাড়া কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হলেও তাদের টিকা দেওয়ার উদ্যোগ নেওয়া হবে।

আরও জানা গেছে, ১২ থেকে ১৮ বছরের কোনো শিক্ষার্থী টিকা না পেয়ে থাকলে অধ্যয়নরত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে বিষয়টি জেলা শিক্ষা অফিসে জানানো হলে কেন্দ্রে গিয়ে টিকা নিতে পারবেন শিক্ষার্থী। এছাড়া কোনো শিক্ষার্থীর বয়স ১২ বছর পূর্ণ হলে তারাও তাদের স্কুলের সহায়তায় জেলা শিক্ষা অফিসের মাধ্যমে টিকা পাবেন। দ্বিতীয় ডোজের পাশাপাশি বাদ পড়া শিক্ষার্থীদের প্রথম ডোজ টিকাও দেওয়া হচ্ছে।

আরও পড়ুন: বুস্টার ডোজের বয়স কমলো, ১২ বছরের বেশি হলেই করোনার টিকা

এ বিষয়ে সিভিল সার্জন ডা. মো. ইলিয়াছ চৌধুরী জানান, শিক্ষার্থীরা টিকা কার্ড নিয়ে কেন্দ্রে গেলেই টিকা পাবে। টিকা কার্ডের তথ্য পরবর্তী সংশ্লিষ্ট শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রধানকে জানানো হবে। কোনো শিক্ষার্থী টিকা না নিয়ে ফেরত যাবে না। বাদ পড়া সব শিক্ষার্থীকে টিকার আওতায় আনা হবে। শিক্ষার্থীরা এসে প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজের টিকা নিতে পারবে।

আরবি

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm