সাগরে জাল তুলতেই জেলের পেটে গুলি, অভিযোগের তীর আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর দিকে

আনোয়ারায় সাগর থেকে জাল তুলে আনতে গিয়ে রাসের নামে এক জেলে গুলিতে নিহত হয়েছেন। পরিবারের দাবি, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা তাকে গুলি করে হত্যা করেছে।

বুধবার (১৩ এপ্রিল) সকাল ১১টায় উপজেলার রায়পুর ইউনিয়নের বাতিঘর ছত্তার মাঝির ঘাট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত রাসেল উপজেলার রায়পুর ইউনিয়নের দক্ষিণ পরুয়াপাড়া ২ নম্বর ওয়ার্ডের মুন্না মাঝির বাড়ির মো. রফিকের ছেলে।

আরও পড়ুন: বিজিপির গুলি—এক জেলে ফিরলেও অন্যজন নিখোঁজ

আনোয়ারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দায়িত্বরত চিকিৎসক নিশাত সুলতানা জানান, গুলিবিদ্ধ একজনকে হাসপাতালে মৃত অবস্থায় নিয়ে আসা হয়।

নিহতের মামা মো. এনাম জানান, মাছ ধরতে আমরা সাগরে জাল বসায়। সে জাল তুলতে ভাগিনা রাসেলকে নিয়ে বাতিঘর ছত্তার মাঝির ঘাটে যায়। ওই সময় দুটি স্পিডবোটে করে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পরিচয়ে জাল তুলে নিতে চাইলে আমরা বাধা দিলে দুটি গুলি করেন তারা। এ সময় রাসেলের পেটে গুলি লাগলে ঘটনাস্থলে মারা যায় সে। ঘটনার পর স্থানীয়দের সহযোগিতায় আমরা তাকে মেডিকেলে নিয়ে আসি।

নিহতের বাবা মো. রফিক জানান, আমার চার ছেলে-মেয়ের মধ্যে রাসেল মেজ। পাঁচ মাস আগে সে বিয়ে করেছে। জীবিকার তাগিদে সে সাগরে মাছ ধরত। কোস্টগার্ড প্রায়সময় জেলেদের মারধর করে এবং জাল নিয়ে যায়। এখন তারাই গুলি করে মেরেছে আমার ছেলেকে। এই হত্যার সুষ্ঠু বিচার চাই।

এ বিষয়ে রায়পুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আমিন শরীফ জানান, মাছ ধরার জন্য সাগরে ফেলা জাল আনতে গিয়ে এ ঘটনা ঘটেছে। ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে অপরাধীর বিচারের দাবি জানাচ্ছি প্রশাসনের কাছে।

আরও পড়ুন: বান্দরবানে দুগ্রুপের গোলাগুলি—নদীপাড়ে মিলল ৪ লাশ

জানতে চাইলে উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. রাশেদুল হক আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, ঘটনার দিন কোনো অভিযান ছিল না। ঘটনার পর আমরা কোস্ট গার্ড ও নৌ পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করেছি। অভিযানের বিষয়ে তারা কিছুই জানেন না বলে জানিয়েছেন।

যোগাযোগ করা হলে আনোয়ারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দিদারুল ইসলাম সিকদার বলেন, নিহতের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরির পর ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।

ইমরান/আরবি

মন্তব্য নেওয়া বন্ধ।

ksrm