রাতে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার জমি দখল, বিকালে উচ্ছেদ

উচ্ছেদের এক বছরের ব্যবধানে ফের রাতের অন্ধকারে পলিথিন ও বাঁশ দিয়ে স্থাপনা নির্মাণ করে দখল করা হয়েছে কক্সবাজার কলাতলী সুগন্ধা পয়েটস্থ রাস্তার উত্তর পাশ। আদালতের সাইনবোর্ড লাগিয়ে গভীর রাতে সরকারি জমি দখল করে দোকান নির্মাণ করেন জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা হাজী জসীম উদ্দিন ছিদ্দিকী।

কিন্তু তার এ কাজে পানি ঢালে জেলা প্রশাসন। সরকারি জমি দখলের খবর পেয়ে সোমবার (২৫ অক্টোবর) বিকালে সরেজমিন গিয়ে উচ্ছেদ করে কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের একটি দল। উচ্ছেদে নেতৃত্ব দেন কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আমিন আল পারভেজ।

আরও পড়ুন : ‘খুনি’ ভোলাকে সঙ্গে নিয়ে কর্ণফুলীর তীরে দখলবাণিজ্য বাস্তহারা জসিমের

জানা যায়, সোমবার গভীর রাতে ট্রাকে করে বাঁশ ও পলিথিন এনে অর্ধ শতাধিক দোকান নির্মাণ করা হয় সরকারি জমিতে। প্রায় ৪টি ট্রাকে করে সরঞ্জাম এনে তাড়াহুড়া করেই কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে স্থাপনাগুলো নির্মাণ করা হয়। এজন্য প্রায় শতাধিক শ্রমিকও নিয়োগ দেওয়া হয়। দোকান নির্মাণের নামে কয়েক কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন স্বেচ্ছাসেবক লীগের ওই নেতা।

উল্লেখ্য, প্রায় ১ বছর আগে সুগন্ধা পয়েন্টের উত্তর পাশে প্রায় শতাধিক অবৈধ দোকান উচ্ছেদ করে কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ ও জেলা প্রশাসন। উচ্ছেদের সময় সেখানে পুলিশ ও দোকানদার এবং বহিরাগতদের সঙ্গে সংর্ঘষের ঘটনাও ঘটে। এ সময় পুলিশ ফাঁকা গুলিও ছুঁড়ে। এতে পুলিশ সদস্যসহ অনেকেই আহত হন। অবৈধ দখলকারীদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ। এরপর সব অবৈধ স্থাপনা সরকারি জমি থেকে উচ্ছেদ করা হয়েছিল। উচ্ছেদের প্রায় ১ বছর পর সোমবার দিবাগত রাতে সেই চিহ্নিত ভূমিদস্যুরা ফের দোকান নির্মাণ শুরু করে।

বলরাম/ডিসি
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm