‘বিপজ্জনক’—২৪ মৃত্যুতে চোখ রাঙানি ডেঙ্গুর

দেশে করোনা দুর্যোগের মধ্যেই বাড়ছে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যাও। সংশ্লিষ্ট সূত্রের খবর, ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে সন্দেহজনক হিসেবে এরমধ্যেই ২৪ জনের মৃত্যুর তথ্য পাঠানো হয়েছে রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) কাছে।

সরকারি হিসাবে, বর্তমানে দেশের সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে ৯৫২ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি রয়েছেন। এরমধ্যে সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় (গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে আজ শুক্রবার সকাল ৮টা পর্যন্ত) ঢাকায় ভর্তি হয়েছেন ২১০ জন, আর ঢাকার বাইরে ১ জন।

শুক্রবার (১৩ আগস্ট) স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এ তথ্য জানিয়েছে।

জানা যায়, আইইডিসিআরের কাছে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু সন্দেহে ২৪ জনের তথ্য পাঠানো হয়েছে। তবে সে তথ্যের পর্যালোচনা শেষ করে এখন পর্যন্ত তারা ডেঙ্গুতে মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করতে পারেনি।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, ঢাকার ৪১টি সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি থাকা ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা আজ (শুক্রবার) পর্যন্ত ৮৮৪ জন। দেশের অন্যান্য বিভাগের হাসপাতালগুলোয় ভর্তি আছে আরও ৬৮ রোগী।

আরও পড়ুন: ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামে ২৪ শতাংশ নমুনায় করোনা, ২৪ করে দুই উপজেলাতেই

এদিকে চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে ১৩ আগস্ট পর্যন্ত দেশে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে ৫ হাজার ৬৪৫ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। এ সময় সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছে ৪ হাজার ৬৬৯ জন।

ডেঙ্গু শনাক্তের দিক থেকে জুলাই মাসকে ছাড়িয়েছে আগস্ট মাস। গত জুলাই মাসে ডেঙ্গু ও সন্দেহজনক ডেঙ্গু রোগী ছিল ২ হাজার ২৮৬ জন। শুক্রবার পর্যন্ত তা হয়েছে ২ হাজার ৯৮৭ জন।

এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত চিকিৎসক ও কোভিড–১৯ বিষয়ক জাতীয় সমন্বয় কমিটির উপদেষ্টা অধ্যাপক ডা. এ বি এম আবদুল্লাহ বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে একইসঙ্গে করোনাভাইরাস ও ডেঙ্গুতে আক্রান্তের হার বেড়ে যাওয়ায় নগরবাসী নাকাল। কোভিড–১৯ ও ডেঙ্গু জ্বর—দুটোই ভাইরাসজনিত রোগ, এদের মধ্যে উপসর্গজনিত মিল-অমিল আছে। আবার দুটিই জটিল হয়ে পড়তে পারে কারও কারও ক্ষেত্রে। সে ক্ষেত্রে হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়।

তিনি বলেন, দুই রোগের সংক্রমণের হার বাড়ায় হাসপাতালের শয্যা, সুযোগ-সুবিধা আর চিকিৎসাসেবার ওপরও পড়েছে চাপ। আবার দেখা যাচ্ছে, কোনো কোনো রোগীর ডেঙ্গু আর কোভিড একসঙ্গেই হয়েছে। তখন চিকিৎসাব্যবস্থা কী হবে, তা নিয়ে তৈরি হচ্ছে দ্বিধাদ্বন্দ্ব। কেউ ডেঙ্গু নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর সেখানে গিয়ে কোভিড–১৯ রোগীর সংস্পর্শে এসে এ রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন।

জেডএইচ
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm