চেক প্রতারণা মামলায় জেলে সাবেক মেয়র—বীর মুক্তিযোদ্ধা

চেক প্রতারণা মামলায় বাঁশখালীর পৌরসভার সাবেক মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা সেলিমুল হক চৌধুরীকে (৭৮) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

সোমবার (৮ জুলাই) রাতে উপজেলা সদরের একটি মার্কেট থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

এদিকে আজ (মঙ্গলবার) দুপুরে তাকে আদালতে তোলা হলে জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত।

গ্রেপ্তার সেলিমুল হক চৌধুরী পৌরসভার উত্তর জলদী গ্রামের মৃত জহিরুল হক চৌধুরীর ছেলে। তাঁর বিরুদ্ধে চেক জালিয়াতি মামলাগুলো করেছিলেন পৌরসভার ব্যবসায়ী জামাল উদ্দিন এবং বৈলছড়ি এলাকার মহিউদ্দিন নামের দুব্যক্তি।

আরও পড়ুন : চেক প্রতারণা—আদালতের আদেশে ঘর ও জমি ক্রোক করলেন ম্যাজিস্ট্রেট

বিষয়টি নিশ্চিত করে বাঁশখালীর যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ আদালতের এপিপি অ্যাড. জুবেদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, সাজাপ্রাপ্ত আসামি বাঁশখালী পৌরসভার সাবেক মেয়রকে পুলিশ আদালতে নিয়ে আসলে তাঁর আইনজীবী জামিন প্রার্থনা করেন। দীর্ঘ শুনানি শেষে জামিন না মঞ্জুর করে তাঁকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত।

মামলা সূত্রে জানা যায়, বীর মুক্তিযোদ্ধা সেলিমুল হক চৌধুরীর বিরুদ্ধে তিনটি চেক জালিয়াতির মামলায় পৃথকভাবে ২ বছরের কারাদণ্ড ও ১১ লাখ ৭০ হাজার টাকার অর্থদণ্ড দেওয়া হয়। এর মধ্যে ৮২৮/১৯ সিআর মামলায় ৬ মাস কারাদণ্ড ও ২ লাখ টাকা অর্থদণ্ড, ৮২৯/১৯ সিআর মামলা ৬ মাস কারাদণ্ড ও ২ লাখ টাকা অর্থদণ্ড এবং ৩০৫/২১ সিআর মামলায় এক বছর কারাদণ্ড এবং ৭ লাখ ৭০ হাজার অর্থদণ্ড দেওয়া হয়।

বাঁশখালী থানার এস আই কামরুল হাসান কায়কোবাদ আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, সোমবার রাতে উপজেলা সদরের একটি মার্কেট থেকে সাজাপ্রাপ্ত আসামি সেলিমুল হক চৌধুরীকে গ্রেপ্তার করা হয়। আজ সকালে তাকে আদালতে তোলা হলে সেখান থেকে কারাগারে পাঠানো হয়।

ইউবি/আরবি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!