চুরির কাজেও অস্ত্র—সুযোগ পেলেই ডাকাতি, সঙ্গে থাকত পিকআপও

ডাকাতির প্রস্তুতিকালে আন্তঃজেলা ডাকাত চক্রের ৫ সদস্যকে নগরের পাহাড়তলী থেকে আটক করেছে পুলিশ। এ সময় অস্ত্রসহ একটি মিনি পিকআপ জব্দ করা হয়।

বৃহস্পতিবার (২০ মে) রাতে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করে পুলিশ।

আটক ডাকাতরা হলো- জাহাঙ্গীর আলম (৩১), মো. আবুল কালাম ওরফে সোহেল (৩২), মো. বাবুল মিয়া (৪২), মো. রিপন (৩১), আব্দুল্লাহ আল মামুন (৩০)।

এদের মধ্যে জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে কুমিল্লার লাঙ্গলকোট, চৌদ্দগ্রাম, লক্ষীপুরের চন্দ্রগঞ্জ থানা এবং সিএমপির পাহাড়তলী থানায় অস্ত্র ও ডাকাতির ৮টি মামলা রয়েছে। আবুল কালাম ওরফে সোহেলের বিরুদ্ধে ৩টি ও বাবুল মিয়ার বিরুদ্ধে ৩টি মামলা রয়েছে।

পাহাড়তলী থানার অফিসার ইনচার্জ মো. হাসান ইমাম জানান, বৃহস্পতিবার রাত ১২টার দিকে দুলালাবাদ পাহাড়তলী রেলক্রসিং সংলগ্ন পাকা রাস্তা থেকে ৫ আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সদস্য গ্রেফতার করা হয়। তাদের কাছ থেকে ২টি ছোরা, ১টি বোল্ড কাটার, ১টি শাবল, ১টি প্লাস, ১টি নোস প্লাস, ১টি লোহার হাতল এবং ১টি মিনি পিকআপ জব্দ করা হয়।

জিজ্ঞাসাবাদে ডাকাতরা জানায়, তারা চট্টগ্রামের বিভিন্ন জেলায় ডাকাতি ও গরু চুরি করে। গত এক মাস আগে জোরারগঞ্জ, ফকিরহাটসহ বিভিন্ন এলাকায় একাধিক ডাকাতি ও গরু চুরি করেছে।

পুলিশ জানায়, গ্রেফতারকৃতরা ডাকাতি করার জন্য যাচ্ছিল। পিকআপযোগে যাওয়ার পথে সন্দেহ হলে পাহাড়তলী থানা পুলিশ তাদের আটক করে তল্লাশি করলে গাড়িতে বিভিন্ন দেশীয় অস্ত্র পাওয়া যায়।

পাহাড়তলী থানার অফিসার ইনচার্জ মো. হাসান ইমাম বলেন, তারা বিভিন্ন উপজেলায় গিয়ে ডাকাতি করে নগরে চলে আসে। ফলে পুলিশ তাদের ধরতে পারে না। তাদের বিরুদ্ধে ডাকাতির প্রস্তুতি ও অস্ত্র আইনে মামলা রুজু করা হয়েছে।

আলোকিত চট্টগ্রাম

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm