‘চাকরি নিয়ে ঝগড়া’—গৃহবধূ ঝুলল দড়িতে, স্বামীকে খুঁজছে পুলিশ

চট্টগ্রামের কর্ণফুলী এলাকায় সাজেদা আকতার (৩২) নামের এক গৃহবধূর মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।

শনিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরে উপজেলার চরলক্ষ্যা ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের নিজ ঘর থেকে ওই গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

নিহত গৃহবধূ পটিয়া উপজেলার মেহেআটি গ্রামের মৃত মকবুল হকের মেয়ে।

এদিকে এ ঘটনায় স্বামী আমির হোসেনকে (৪০) আসামি করে থানায় মামলা করেছেন নিহতের বড় ভাই জসিম উদ্দিন।

আরও পড়ুন: অপহরণ না আত্মগোপন—২৪ দিনেও খোঁজ মেলেনি ছাত্রীর

Thai Food

নিহতের বড় বোন মোছাম্মৎ রাশেদা বেগম (৪০) জানান, ২০০৮ সালে পারিবারিকভাবে আমিরের সাথে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয় ছোট বোন জাহেদা। তার ১১ বছরের একটি মেয়ে ও ৯ বছরের একটি ছেলে রয়েছে। স্বামী আমির হোসেন একজন কার্পেন্টার মিস্ত্রি। বিয়ের তিনবছর পর্যন্ত তাদের সংসার ভালোই চলছিল। এরপর হঠাৎ স্বামীর নির্যাতন শুরু হয়। শনিবার বেলা ১২টার দিকে বোন আমাকে ফোন করে জানায় চাকরি ছেড়ে দিয়েছি, আমির খুব মারধর করেছে। এরপর বিকালে জানতে পারি সাজেদা আত্মহত্যা করেছে। এটি আত্মহত্যা নয়, তাকে মেরে ফেলা হয়েছে।

মামলার বাদী নিহতের বড় ভাই জসিম উদ্দিন জানান,  আমার বোনকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে দিয়েছে। তার শরীরে নির্যাতনের চিহ্ন রয়েছে। এ ঘটনায় আমি থানায় মামলা করেছি।

আরও পড়ুন: ‘রক্তাক্ত লাশ’ সাতকানিয়ায় নিজ ঘরেই, হত্যা—আত্মহত্যায় দুলছে

স্থানীয় মহিলা ইউপি সদস্যা কামরুন্নাহার বেগম জানান, চাকরি ছেড়ে দেওয়া নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে একাধিকবার ঝগড়া হয়।

কর্ণফুলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দুলাল মাহমুদ জানান, গৃহবধূ নিহতের ঘটনায় স্বামী আমির হোসেনকে আসামি করে থানায় নিহতের বড় ভাই মামলা করেছেন। আসামিকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ইমরান/আরবি
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm