‘চাকরির হতাশায় মৃত্যু’—শেষমেষ আত্মহত্যার পথেই গেল যুবক

করোনাকালে হারিয়েছেন চাকরি। এরপর থেকেই থাকতেন মানসিক অস্থিরতায়। এই যন্ত্রণা থেকে মুক্তি পেতে আগেও একবার করেছিলেন আত্মহত্যার চেষ্টা। সেবার সফল না হননি। বন্ধুরা তাকে ফিরিয়ে এনেছিল সেই পথ থেকে। কিন্তু এবার সত্যি সত্যি না ফেরার দেশে চলে গেলেন ফাইয়াজ নূর (২১)।

মানসিক বিষাদগ্রস্ত হয়ে কর্ণফুলী নদীতে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন বেসরকারি পলিটেকনিক্যাল ইনস্টিটিউটের ষষ্ঠ সেমিস্টারের এ শিক্ষার্থী। শনিবার (২৮ আগস্ট) বিকালে নগরের ফিশারিঘাট এলাকা থেকে তার লাশ উদ্ধার করেছে সদরঘাট নৌ পুলিশ।

আরও পড়ুন: যৌতুকের চাপে গৃহবধূর আত্মহত্যা, স্বামী পলাতক

জানা যায়, ফাইয়াজ নূর নগরের একটি বেসরকারি পলিটেকনিক্যাল ইনস্টিটিউটের ষষ্ঠ সেমিস্টারের ছাত্র ছিলেন। বায়েজিদ বোস্তামীর শেরশাহ কলোনিতে পরিবারের সঙ্গে থাকতেন তিনি। এছাড়া একটি কোম্পানিতে সফটওয়্যার ডেভেলপের কাজ করতেন। করোনায় চাকরি হারালে মানসিক অস্থিরতায় ভুগেন ফাইয়াজ। ২৪ আগস্ট ফেসবুক লাইভে এসে কর্ণফুলী নদীতে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে  বন্ধু ও স্বজনরা দেখলে সে যাত্রায় তাকে আত্মহত্যার পথ থেকে ফেরান তারা। ২৬ আগস্ট বিকালে দোকান থেকে গ্যাস বিলের কপি আনতে যাচ্ছে বলে বাসা থেকে বের হন ফাইয়াজ। এরপর আর ফেরেননি। তার পরিবার ওই দোকানে খোঁজ নিলে জানতে পারেন, ফাইয়াজ সেখানে যাননি। পরিবারের লোকজন বিভিন্ন জায়গায় খোঁজ শুরু করলেও থানায় ডায়েরি করেননি। শনিবার দুপুর আড়াইটার দিকে ফিশারিঘাট এলাকায় তার লাশ ভেসে উঠলে সদরঘাট নৌ পুলিশ উদ্ধার করে। পরে প্যান্টের পকেটে থাকা জাতীয় পরিচয়পত্র দেখে ঠিকানা নিশ্চিত করে পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করেন তারা।

পরিবারের সদস্যদের উপস্থিতিতে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

সদরঘাট নৌ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এবিএম মিজানুর রহমান বলেন, শনিবার দুপুরে স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে কর্ণফুলী নদী থেকে এক যুবকের লাশ উদ্ধার করা হয়। লাশটি ফিশিংবোটের সঙ্গে আটকে ছিল। যুবকের প্যান্টের পকেটে জাতীয় পরিচয়পত্র পাওয়া যায়। সেখান থেকে ঠিকানা নিয়ে পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য চমেক হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে।

সিএম/ডিসি
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm