চট্টগ্রামে শিশু অপহরণ, নানীর সঙ্গে হাঁটতে হাঁটতেই নাতনিকে নিয়ে উধাও

নগরে তিন বছর বসয়ী জেমী নামের এক কন্যা শিশুকে অপহরণের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় ভিকটিমের পরিবার মামলা করেছে।

বৃহস্পতিবার ২২ সেপ্টেম্বর) বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে নগরের বন্দর থানার কলসিদীঘির পাড় এলাকায় এ অপহরণের ঘটনা ঘটে।

অপহৃত শিশু জেমী কুমিল্লা জেলার মনোহরগঞ্জ থানার আনা মিয়া সওদাগর বাড়ির মো. জুয়েল রানার মেয়ে।

আরও পড়ুন: অপহরণের ৩ বছর পর চট্টগ্রামের শিশুকে ঢাকায় পেল পিবিআই

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে অপহৃত জেমী তার নানীর সঙ্গে বন্দর থানার কলসীদীঘির পাড় এলাকার খালার বাসায় আসছিল। লাকসাম থেকে সকাল সাড়ে ১১টার দিকে তারা ট্রেনে উঠেন।

Yakub Group

আসার পথে ট্রেনে বসার সিট না পাওয়ায় মেঝেতে ভিকটিম তার নানীর সঙ্গে বসে। এ সময় অজ্ঞাত এক পুরুষ ভিকটিম ও তার নানীর পাশে দাঁড়িয়ে ছিল। নানীর সঙ্গে অজ্ঞাত লোকটি কথা বলার সময় তার বাড়ি কুমিল্লা জেলার লাকসাম বলে জানায়।

এদিন দুপুর সাড়ে ৩টার দিকে ভিকটিম ও তার নানী চট্টগ্রাম রেলস্টেশনে নামেন। এময় অজ্ঞাত লোক রেলস্টেশনে নেমে তার বাসা কলসীদীঘির পাড় জানিয়ে একসঙ্গে সিটি সার্ভিস ৬ নম্বর বাসে ফ্রি-পোর্ট মোড়ে নামেন। বাস থেকে নামার পর ওই লোক ভিকটিমের নানীকে রিকশা ভাড়া বেশি জানিয়ে পায়ে হেঁটে যেতে বলেন।

হাঁটার সময় লোকটি অপহৃত জেমীকে কোলে নিয়ে নানীর পেছনে পেছনে হাঁটতে থাকেন। বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে বন্দর থানাধীন কলসীদীঘি রোডের ওয়াশীল চৌধুরীপাড়া নতুন রাস্তার মোড় পৌঁছালে ভিকটিমের নানী পেছনে ফিরে দেখেন লোকটি তার নাতনিকে নিয়ে উধাও।

এ বিষয়ে বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাহফুজুর রহমান আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, ঘটনার একদিন পর অপহৃত জেমীর বাবা মো. জুয়েল থানায় অপহরণ মামলা করেন। জড়িত ব্যক্তিকে শনাক্তের চেষ্টা চলছে। আমাদের অভিযান অব্যাহত আছে।

আরএন/আরবি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

মন্তব্য নেওয়া বন্ধ।

ksrm