চট্টগ্রামে দেড় লাখ ইয়াবা আনা ৩ যুবকের যাবজ্জীবন সাজা

আনোয়ারায় দেড় লাখ ইয়াবাসহ আটক তিন যুবককে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একইসঙ্গে প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানা অনাদায়ে আরও এক বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

বুধবার (৫ জুন) চট্টগ্রামের সপ্তম অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আ স ম শহীদুল্লাহ কায়সার এ রায় দেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেন রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি নুরজাহান ইসলাম মুন্না।

দণ্ডিতরা হলেন— মো. ইব্রাহিম, জাহেদ হোসেন ও মাহমুদুল হক। তাদের সবার বাড়ি কক্সবাজার জেলার টেকনাফ উপজেলায়।

আরও পড়ুন : রায়ে সন্তুষ্ট নন নেজাম পাশার সন্তান, খুনির সর্বোচ্চ সাজায় যাবেন হাইকোর্টে

মামলার নথি সূত্রে জানা যায়, ২০২০ সালের ২৪ ডিসেম্বর সকালে আনোয়ারা উপজেলার কালাবিবির দীঘির মোড় এলাকা থেকে তিন যুবককে এক লাখ ৪৬ হাজার পিস ইয়াবাসহ আটক করে পুলিশ। আটকদের মধ্যে মাহমুদুল হক টেকনাফ কলেজের অনার্সের ও জাহেদ এইচএসসি দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র। ইব্রাহিম কৃষি শ্রমিক।

এদিন দুটি মোটরসাইকেলে বাঁশখালী-আনোয়ারা সড়কের কালাবিবি দীঘির পাড় এলাকা অতিক্রমের সময় পটিয়া ও আনোয়ারা থানা পুলিশের যৌথ তল্লাশি চৌকিতে তাদের আটক করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটকরা জানায়, তিন লাখ টাকার চুক্তিতে তারা ইয়াবাগুলো টেকনাফ থেকে চট্টগ্রামে নিয়ে আসছিল। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে তিনজনকে আসামি করে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে আনোয়ারা থানায় মামলা করে।

এ বিষয়ে অতিরিক্ত জেলা পিপি নুরজাহান ইসলাম মুন্না বলেন, মামলার অভিযোগপত্রেও পুলিশ তিনজনকেই আসামি করে। অভিযোগ গঠনের পর রাষ্ট্রপক্ষে মোট ২১ জন সাক্ষী আদালতে উপস্থাপন করা হয়। তাদের সাক্ষ্যে আসামিদের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণ হওয়ায় আদালত তাদের যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন। এছাড়া প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানা, অনাদায়ে আরও এক বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

পিপি আরও বলেন, রায় ঘোষণার সময় তিন আসামি আদালতে হাজির ছিলেন। রায়ের পর সাজামূলে তাদের কারাগারে পাঠানো হয়।

কাঞ্চন/আরবি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!