চট্টগ্রামে ছোট বোনকে চিপস কিনতে পাঠিয়ে বড় বোনকে ধর্ষণ

নয় বছরের শিশুকে ধর্ষণ করায় মো. ফজলুল শেখকে (৪৮) যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

মঙ্গলবার (১৪ মে) চট্টগ্রাম নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুানালের বিচারক ফেরদৌস আরা এ রায় দেন।

দণ্ডিত ফজলুল শেখ (৪৮) ফরিদপুর জেলার সালতা থানার যৌথনন্দী এলাকার মৃত মো. আফসার শেখের ছেলে। তিনি চট্টগ্রাম নগরের পতেঙ্গা থানার কাটগড় এলাকায় একটি নির্মাণাধীন ভবনের তত্ত্বাবধায়ক ছিলেন।

আরও পড়ুন : চট্টগ্রাম মেডিকেলের পরিত্যক্ত রুমে রোগীকে ধর্ষণ, ধরা পড়ল পিশাচ

বিষয়টি নিশ্চিত করে ট্রাইব্যুানালের পিপি খন্দকার আরিফুল আলম আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, নগরের পতেঙ্গা থানায় ৯(৪)(খ) ধারায় এ মামলা রুজু হলেও বিচারিক প্রক্রিয়ায় সেটি ৯(১) ধারায় পরিবর্তন হয়। এ ধারায় আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড, তিন লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও এক বছরের সশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ দেন আদালত। আসামির উপস্থিতিতে রায় ঘোষণার পর সাজা পরোয়ানামূলে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

মামলার নথি থেকে জানা গেছে, নয় বছর বয়সী শিশুটির মা পোশাকশ্রমিক ও বাবা একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের গাড়িচালক। ২০১৬ সালের ১৮ আগস্ট সকালে বাবা-মা দুজন নিজ নিজ কর্মস্থলে চলে যাওয়ার পর ধর্ষণের শিকার হয় ওই শিশু। ফজলুল শেখের কর্মরত নির্মানাধীন ভবনের পাশেই ছিল শিশুটির বাসা। মা-বাবা কর্মস্থলে যাওয়ার পর ভিকটিম শিশু ও তার ছোট বোন সেই ভবনে খেলাধুলা করতে যায়। এসময় ফজলুল ছোট বোনকে চিপস কিনতে পাঠিয়ে দ্বিতীয় শ্রেণি পড়ুয়া ওই শিশুকে ধর্ষণ করেন। পরে শিশুটির চিৎকার চেচামেচি করলে তাকে ছেড়ে দেয়। এসময় শিশুটি শারীরিকভাবে আঘাতপ্রাপ্ত হয়।

ঘটনার দিন রাতে মা ঘরে ফেরার পর শিশুটি মাকে ফজলুলের বিষয়ে জানায়। পরদিন শিশুটির বাবা ঘরে ফিরলে তারা পতেঙ্গা থানায় মামলা করেন। সেই মামলায় ২০১৭ সালের ৫ মে অভিযোগ গঠন করেন আদালত। মোট পাঁচজন সাক্ষীর সাক্ষ্য উপস্থাপন করে রাষ্ট্রপক্ষ।

আরএস/আরবি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!