চট্টগ্রামে করোনা : দুই ল্যাবে হারিয়ে গেছে সাতের সাফল্য

এন্টিজেন টেস্ট বাদে প্রতিদিন ১১টি ল্যাবে চট্টগ্রামে করোনার নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে দুটি ল্যাবে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা পরীক্ষা হয়নি। বাকি ৯ ল্যাবের মধ্যে সাতটিতেই শনাক্তের হার অনেকটা কম। অপর দুটি ল্যাবে বেড়ে গেছে শনাক্তের হার। এই দুই ল্যাবের বাড়তি শনাক্তে হারিয়ে গেছে সাত ল্যাবের সাফল্য।

গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামে ১ হাজার ৪১৯ নমুনা পরীক্ষায় ২১৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়। শনাক্তের হার ১৫.৪৪ শতাংশ। এর মধ্যে শুধু দুই ল্যাবেই শনাক্ত হয়েছে যথাক্রমে ৫৬ ও ৫৭.৯ শতাংশ! ল্যাব দুটি হলো চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ও আরটিআরএল।

আরও পড়ুন: চট্টগ্রামে করোনা: শনাক্তে স্বস্তি, গ্রামে থামছে না আহাজারি

সিভিল সার্জন কার্যালয়ের তালিকা অনুযায়ী, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে ১৬০ নমুনা পরীক্ষায় ৫৬ জন, বিআইটিআইডি ল্যাবে ২৫৮ নমুনা পরীক্ষায় ১২ জন, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ল্যাবে ৪৬২ নমুনা পরীক্ষায় ৬৮ জন, ইমপেরিয়াল ল্যাবে ১২৭ নমুনা পরীক্ষায় ১৩ জন, শেভরন ল্যাবে ১৭২ নমুনা পরীক্ষায় ১০ জন, মা ও শিশু হাসপাতাল ল্যাবে ৪৩ নমুনা পরীক্ষায় ৯ জন, আরটিআরএল ল্যাবে ১৯ নমুনা পরীক্ষায় ১১ জন, মেডিকেল সেন্টার হাসপাতালে ১৯ নমুনা পরীক্ষায় ৩ জন এবং ইপিক হেলথ কেয়ার ল্যাবে ৫৮ নমুনা পরীক্ষায় ১৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়।

এদিকে ১০১ জনের এন্টিজেন টেস্টে ২০ জন শনাক্ত হয়।

এছাড়া ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাব ও কক্সবাজার মেডিকেল কলেজে এদিন কোনো করোনা পরীক্ষা হয়নি।

এদিকে উপজেলায় আক্রান্তদের মধ্যে লোহাগাড়ায় ১ জন, সাতকানিয়ায় ৩ জন, বাঁশখালীতে ৩, আনোয়ারায় ২ জন, চন্দনাইশে ২ জন, পটিয়ায় ৯ জন, বোয়ালখালীতে ২১ জন, রাঙ্গুনিয়ায় ১ জন, রাউজানে ৩০ জন, ফটিকছড়িতে ৮ জন, হাটহাজারীতে ৮ জন, সীতাকুণ্ডে ৬ জন, এবং মিরসরাইয়ে ৬ জন দেহে করোনা পাওয়া যায়। সন্দ্বীপে এদিন কোনো করোনা রোগী পাওয়া যায়নি।

আরও পড়ুন: চট্টগ্রামে করোনা : সিঙ্গেল ডিজিটে ১০ উপজেলা, দুটিতে ডাবল—দুটিতে ‘দাপট’

চট্টগ্রামে গত ২৪ ঘণ্টায় পাঁচ করোনা রোগীর মৃত্যু হয়। এর মধ্যে ৩ জন নগরের এবং ২ জন উপজেলার। এছাড়া আক্রান্ত ২১৯ জনের মধ্যে ১১৯ জন নগরের এবং ১০০ জন উপজেলার বাসিন্দা।

আরবি

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm