চকরিয়ায় আওয়ামী লীগের সঙ্গে সমানে লড়েছে বিদ্রোহী—স্বতন্ত্র

কক্সবাজারের চকরিয়ার ৮ ইউনিয়নে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে আওয়ামী লীগের ৪ জন, বিদ্রোহী ২ জন ও স্বতন্ত্র ২ প্রার্থীর জয়ী হয়েছেন। এর মধ্যে সুরাজপুর-মানিকপুর ইউনিয়নে আগেই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান প্রার্থী নির্বাচিত হন।

রোববার (২৬ ডিসেম্বর) রাত সোয়া ১০টায় বেসরকারিভাবে ফলাফল এ ঘোষণা করেন নির্বাচন কর্মকর্তা মো. শহিদুল ইসলাম।

নির্বাচনে জয়ী চেয়ারম্যান প্রার্থীরা হলেন- বমু-বিলছড়ি ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী মঞ্জুরুল কাদের, হারবাং ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী মেহরাজ উদ্দিন মিরাজ, ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী হেলাল উদ্দিন হেলালী, চিরিংগা ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী জামাল উদ্দিন চৌধুরী, ডুলাহাজারা ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী হাসানুল ইসলাম আদর, বরইতলি ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. ছালেকুজ্জামান এবং খুটাখালী ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান মাওলানা আবদুর রহমান।

আরও পড়ুন: ছাত্রদল নেতা থেকে আওয়ামী লীগ নেতা, চেয়ারম্যান পদে লড়ছেন পটিয়ায়

এর আগে সুরাজপুর-মানিকপুর ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল হওয়ায় নৌকার প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান আজিমুল হক আজিম বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন।

আজ (রোববার) সকাল থেকে কঠোর নিরাপত্তার মধ্যদিয়ে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। জুডিসিয়ালসহ ২১ জন ম্যাজিস্ট্রেট, র‌্যাব-বিজিবি, পুলিশ ও আনসার ব্যাটলিয়নের সদস্যরা ছিলেন কড়া নজরদারিতে।

সকালে সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, ৮ ইউনিয়নের ৭৩টি কেন্দ্রেই ভোটারদের দীর্ঘ সারি। পৃথক লাইনে দাঁড়ান নারী-পুরুষ।

এদিকে ভোট শেষে বরইতলির ৫ নম্বর কেন্দ্রে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে চেয়ারম্যান প্রার্থীদের রেজাল্ট সিট দেয়া নিয়ে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। ওইসময় কেন্দ্রের অদূরে সড়কে গাছ ফেলে ব্যারিকেড দেয় চশমা প্রতীকের সমর্থকরা।

রাত সাড়ে ৮টার পর থেকে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তন মোহনায় নির্বাচন কর্মকর্তা মো.শহিদুল ইসলাম আট ইউনিয়নের প্রতিদ্বন্দ্বী চেয়ারম্যান, সাধারণ ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্যদের বেসরকারি ফলাফল ঘোষণা শুরু করেন।

চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও ইউপি নির্বাচনে সমন্বয়ক সৈয়দ শামসুল তাবরীজ আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে।

মুকুল/আরবি

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm