ঘর থেকে বের হচ্ছিল দুর্গন্ধ, পুলিশ এসে পেল মরদেহ

সীতাকুণ্ডে সোনাইছড়ি এলাকার একটি ভাড়াঘর থেকে সোনিয়া আক্তার (২৪) নামে এক গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

সোনিয়া সীতাকুণ্ড উপজেলার সোনাইছড়ি ইউনিয়নের কেশবপুর গ্রামের খবিউল হকের মেয়ে। স্বামীর সঙ্গে ওই এলাকার জহুর মেম্বার বাড়িতে ভাড়া থাকতেন তিনি।

বৃহস্পতিবার (১০ জুন) বিকালে মরদেহ উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

থানা সূত্রে জানা গেছে, কেশবপুর গ্রামের খবিউল হকের মেয়ে সোনিয়া আক্তারের সাথে চাঁপাইনবাবগঞ্জ বালিয়াডাঙ্গা গ্রামের বাসিন্দা আনারুল ইসলামের ছেলে আবুজার গিফারীর (২৫) বিয়ে হয়। বিয়ের পর আবুজার সোনিয়াকে নিয়ে কেশবপুর জহুর মেম্বারের বাড়িতে ভাড়াঘরে থাকতেন। ৮ জুন সোনিয়া তার বাবার বাড়ি থেকে চিকিৎসার উদ্দেশ্যে টাকা নিয়ে কেশবপুর যাওয়ার পর থেকে বাড়ির কারো সঙ্গে যোগাযোগ হয়নি। বৃহস্পতিবার দুপুরে সোনিয়ার ঘর থকে দুর্গন্ধ বের হলে এলাকাবাসী পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ এসে বিকাল সাড়ে ৪টায় সোনিয়ার মরদেহ উদ্ধার করে। ঘটনার পর থেকে তার স্বামী আবুজার পলাতক রয়েছে।

সীতাকুণ্ড থানার ওসি (তদন্ত) সুমন বণিক আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, সোনিয়া চিকিৎসার জন্য তার বাবার বাড়ি ও ব্যাংক থেকে কিছু টাকা তুলে নিয়ে যান। স্বামী আবুজার টাকার লোভে তাকে গলাটিপে হত্যা করে পালিয়েছে বলে মনে হচ্ছে প্রাথমিক তদন্তে।

মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য চমেক মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা হবে বলে জানান তিনি।

সালাউদ্দিন/ডিসি

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm