পথে ৬ গর্ত খুঁড়ে ঠেকানোর কৌশল, অলিনগর ছাড়তে হবে লোকজনকে

সীতাকুণ্ডের জঙ্গল সলিমপুরের অলিনগর পাহাড়ের বাসিন্দাদের আগামী ৩০ আগস্টের মধ্যে এলাকা ছাড়তে হবে।

রোববার ((২১ আগস্ট) দুপুরে পরিদর্শনের সময় চট্টগ্রাম-৪ সীতাকুণ্ড আসনের এমপি দিদারুল আলম এ নির্দেশনা দেন। এ সময় তাঁর সঙ্গে প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

পরিদর্শনের সময় এমপি দিদার বলেন, জঙ্গল সলিমপুরের অলিনগরে হাজার হাজার অবৈধ বসতি রয়েছে। সরকার এখানে মহাউন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করবে। তাই অবৈধ কোনো বসতি স্থাপনা এখানে আর থাকতে পারবে না। আগামী ৩০ আগস্টের মধ্যে অবৈধ বসবাসকারীদের এলাকা ছেড়ে চলে যেতে হবে।

আরও পড়ুন: ‘অভিনব কৌশল’—এবার জুসের বোতলে ইয়াবার চালান আনল ২ যুবক

এসময় উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি আনোয়ার হোসেন, পুলিশ কমিশনার কৃষ্ণপদ রায়, জেলা প্রশাসক মো. মমিনুর রহমান, র‌্যাবের সিইও এমএ ইউসুফ, সীতাকুণ্ড উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এসএম আল মামুন, সীতাকুণ্ড উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. শাহাদাত হোসেন, সীতাকুণ্ড সার্কেলের এডিশনাল এসপি মো. আশরাফুল আলম, এসিল্যান্ড মো. আশরাফুল আলম এবং ওসি মো. আবুল কালাম আজাদ।

Yakub Group

এদিন প্রশাসনের উচ্চ পর্যায়ের দলটি প্রায় দুঘণ্টা অবস্থান করেন সেখানে।

পরে তারা ফিরে গেলে সীতাকুণ্ড উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. আশরাফুল আলম দুটি অবৈধ পাকা স্থাপনা ভেঙে গুঁড়িয়ে দেন।

তিনি বলেন, জঙ্গল সলিমপুরের অলিনগরের চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মহোদয়ের নির্দেশনায় একাধিকবার অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানে ইয়াছিন মিয়াসহ তার বেশ কয়েকজন সহযোগীকে গ্রেপ্তার ও দুশতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ, চার শতাধিক ঘরের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, অলিনগরে সরকারের মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়ন শুরু করার পর জেলে থাকা ইয়াছিন মিয়ার নির্দেশে তার সহযোগীরা প্রশাসনের প্রবেশ বন্ধ করতে এলাকায় প্রবেশের ৬টি সড়কে গভীর গর্ত তৈরি করে রাখে। ফলে ভেতরে প্রবেশের পথ বন্ধ হয়ে যায়। খবর পেয়ে আজ (রোববার) সকালে গর্তগুলোতে বালিভর্তি বস্তা ফেলে ভরাট করে সড়কে যান চলাচলের ব্যবস্থা করা হয়।

এসএস/আরবি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

মন্তব্য নেওয়া বন্ধ।

ksrm