রাতের ঘুম হারাম, গভীর রাতে হাতির তাণ্ডব—বসতঘরে হামলা

কর্ণফুলী উপজেলায় ফের তাণ্ডব চালিয়েছে বন্য হাতি। হাতির আক্রমণে ভেঙে গেছে বসতঘর, নষ্ট হয়েছে কৃষিজমির ফসল। তবে এতে হতাহতের কোনো ঘটনা ঘটেনি।

মঙ্গলবার (৫ অক্টোবর) রাতে বড়উঠান ইউনিয়নের আবু সিকদার বাড়িতে পাহাড় থেকে নেমে আসা বন্য হাতি ভোর পর্যন্ত তাণ্ডব চাল‍ায়।

হাতির দল নুর মোহাম্মদ কালু ও বৃদ্ধা নুর জাহান বেগমের বসতঘর ভাঙচুর চালায় এবং বিভিন্ন ফসলি জমি নষ্ট করে। আক্রমণ থেকে বাঁচতে এলাকাবাসী রাতভর নানা কৌশলে হাতি তাড়ানোর চেষ্টা করেন।

আরও পড়ুন: ফজরের নামাজ পড়তে গিয়ে হাতির সামনে মুয়াজ্জিন, ভেঙে দিল কোমর

ক্ষতিগ্রস্ত নুর জাহান বেগম জানান, প্রায় চার বছর ধরে হাতির আক্রমণে আমাদের রাতের ঘুম হারাম হয়ে গেছে। মঙ্গলবার রাত তিনটার দিকে কয়েকটি হাতি এসে বাড়িঘরে হঠাৎ আক্রমণ শুরু করে।

Thai Food

কৃষক আবু সৈয়দ (৫৫) জানান, হাতির তাণ্ডব এখানে নতুন কিছু নয়। দুই বছর ধরে ঘরে ফসলও তুলতে পারছি না।

এর আগে ১৬ সেপ্টেম্বর ভোরে খিলপাড়া এলাকায় হাতির আক্রমণে মসজিদের এক মুয়াজ্জিন গুরুতর আহত হন।

এরপর গত ১৮ সেপ্টেম্বর বড়উঠান ইউনিয়নে ১২ সদস্যের ইআরটি (এলিফ্যান্ট রেসপন্স টিম) গ্রুপ গঠন করে চট্টগ্রাম বন বিভাগ, বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগ।

আরও পড়ুন: ৫ দিনের ব্যবধানে আবারও টেকনাফে বাচ্চা হাতির মৃত্যু

বড়উঠান ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. দিদারুল আলম আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, খাবারের খোঁজে পাহাড় থেকে নেমে আসা হাতির তাণ্ডবে এলাকার মানুষ প্রায় ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। বাড়িঘর ভাঙচুরের বিষয়টি বন বিভাগকে জানানো হয়েছে।

ইমরান/আরবি

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm