‘গণপরিবহন’—চট্টগ্রামে বাড়তি ভাড়া বন্ধে নতুন সিদ্ধান্ত

চট্টগ্রামে গণপরিবহনে বাড়তি ভাড়া বন্ধে নতুন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। নতুন এ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে মাঠে নামছে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ (সিএমপি) ও বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথিরিটি (বিআরটিএ)।

বাড়তি ভাড়া বন্ধের প্রথম পদক্ষেপ হিসেবে ডিজেলচালিত পরিবহনে লাল স্টিকার এবং সিএনজিচালিত পরিবহনে সবুজ স্টিকার লাগানো হবে। নগরের রুটভিত্তিক গণপরিবহনের দূরত্ব অনুযায়ী সরকারের নির্ধারিত ভাড়ার তালিকা থাকবে প্রতিটি গণপরিবহনের অভ্যন্তরে। একইসঙ্গে বাস টার্মিনাল ও বিভিন্ন স্টপেজে যাত্রীদের দৃশ্যমান স্থানেও টাঙানো হবে ভাড়ার তালিকা।

বুধবার (১০ নভেম্বর) বিকালে সিএমপির সদর দপ্তরের সম্মেলন কক্ষে গণপরিবহন মালিক ও শ্রমিক নেতাদের সঙ্গে পুলিশ এবং বিআরটিএ কর্মকর্তাদের সমন্বয়সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সভায় পরিবহন মালিক-শ্রমিক নেতারা সরকারের নির্ধারিত ভাড়া মেনে চলার বিষয়ে প্রতিশ্রুতি দেন।

আরও পড়ুন: অবশেষে নির্ধারণ হলো বাস ভাড়া

সভায় সভাপতিত্ব করেন সিএমপি কমিশনার সালেহ মোহাম্মদ তানভীর। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) শ্যামল কুমার নাথ, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম অ্যান্ড অপারেশন) মো. শামসুল আলম, বিআরটিএর উপপরিচালক, চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং পরিবহন মালিক শ্রমিক নেতারা।

প্রসঙ্গত, গত বুধবার (৩ নভেম্বর) রাতে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ডিজেল ও কেরোসিনের দাম লিটারে ১৫ টাকা বাড়ানোর ঘোষণা দেওয়া হয়। এরপর বৃহস্পতিবার (৪ নভেম্বর) থেকে কার্যকর হয় বাড়তি দাম।

Thai Food

দাম বাড়ানোর বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পরদিনই শুক্রবার (৫ নভেম্বর) সকাল ছয়টা থেকে দেশজুড়ে অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘট শুরু করে বাস, ট্রাকসহ পণ্যবাহী যানবাহন মালিকেরা। যদিও রোববার (৭ নভেম্বর) সকাল ৬টা থেকে চট্টগ্রামে চলতে শুরু করে গণপরিবহন।

পরে রোববার (৭ নভেম্বর) ঢাকায় বিআরটিএর প্রধান কার্যালয়ে পরিবহন মালিক সমিতির নেতাদের সঙ্গে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী দূরপাল্লার বাসের ভাড়া প্রতি কিলোমিটারে ১ টাকা ৪২ পয়সার জায়গায় করা হয় ১ টাকা ৮০ পয়সা। এ ক্ষেত্রে ভাড়া বাড়ানো হয় ২৭ শতাংশ।

আরও পড়ুন: গণপরিবহনে নতুন প্রস্তাব—কোনখানে কত ভাড়া

অপরদিকে ঢাকা-চট্টগ্রামসহ মহানগরগুলোতে ২৬ দশমিক ৫ শতাংশ ভাড়া বাড়ানো হয়। মহানগরে বড় বাসের ভাড়া প্রতি কিলোমিটারে ১ টাকা ৭০ পয়সার জায়গায় ২ টাকা ১৫ পয়সা করা হয়। অপরদিকে মিনি বাসের ভাড়া ১ টাকা ৬০ পয়সার জায়গায় করা হয় ২ টাকা ৫ পয়সা।

এদিকে ভাড়া বাড়ানোর পরও নির্দিষ্ট ভাড়ার চেয়ে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় শুরু করে গণপরিবহনগুলো। ডিজেলচালিত গাড়ির পাশাপাশি গ্যাসচালিত গাড়িগুলোও নেওয়া শুরু করে বাড়তি ভাড়া। এ নিয়ে চালক, হেলপার ও যাত্রীদের মধ্যে বাকবিতণ্ডা থেকে শুরু করে ঘটে অপ্রীতিকর ঘটনা।

আরবি

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm