খুলছে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের হল—৩ ধরনের ছাত্র পাচ্ছেন না সিট

৩৫ দিন পর খুলে দেওয়া হলো চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের (চমেক) প্রধান ছাত্রাবাস। শুরুতে প্রথম ও দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থীরা হলে উঠতে পারবেন। এরপর আগামী তিনদিনে পর্যায়ক্রমে সব শিক্ষার্থীকে হলে উঠার অনুমতি দেওয়া হবে। তবে হলে উঠতে পারবেন না তিন ধরনের শিক্ষার্থী।

শনিবার (৪ ডিসেম্বর) হলে উঠার অনুমতি দেওয়া হয় প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীদের। এরপর আজ রোববার (৫ ডিসেম্বর) চমেকের প্রধান হোস্টেলে উঠার অনুমতি পান দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থীরা।

জানা যায়, ৩০ অক্টোবর চমেকের পাশাপাশি হোস্টেলও অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়। ২৩ নভেম্বর একাডেমিক কাউন্সিলের সভায় সিদ্ধান্ত হয়- হোস্টেলের সব সিট বরাদ্দ বাতিলের। একইসঙ্গে হোস্টেলে সিট প্রত্যাশী শিক্ষার্থীদের নতুন করে আবেদন করার সিদ্ধান্ত হয়।

আরও পড়ুন: চট্টগ্রাম মেডিকেলে নাছির গ্রুপের অনুসারীদের মেরে রক্তাক্ত করল নওফেল গ্রুপ

এদিকে নতুন করে সিট বরাদ্দ দেওয়ার ক্ষেত্রে এবার প্রতিটি ব্যাচের শিক্ষার্থীদের সিট একসঙ্গে রাখা হয়েছে। তবে তিন ধরনের শিক্ষার্থীর আবেদন নেওয়া হয়নি। ১. যেসব শিক্ষার্থী সংঘর্ষে জড়িত ছিল, ২. যারা সংঘর্ষের ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলার আসামি এবং ৩. যারা চট্টগ্রাম নগরের বাসিন্দা।

এর আগে শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলের অনুসারী এবং চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের অনুসারীদের মধ্যে ২৯ অক্টোবর রাত ও ৩০ অক্টোবর সকালে দুদফায় সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষের জেরে পরদিন ৩০ অক্টোবর অনির্দিষ্টকালের জন্য চমেক বন্ধ ঘোষণা করা হয়। একইসঙ্গে ওইদিন বিকেল ৫টার মধ্যে সব শিক্ষার্থীকে হল ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়।

আলোকিত চট্টগ্রাম

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm