চট্টগ্রামে আইনজীবীকে কুপিয়ে খুন, দুই ভাই—বৌদিও ছিল হত্যার মিশনে

আপন ভাইকে দা দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে খুন করেছে বড় ও ছোট দুই ভাই! আর এ খুনের মিশনে তাদের সঙ্গী ছিল নিহতের বৌদিও। নিহত ঝন্টু কুমার নাথ (৩৫) চট্টগ্রাম জেলা ও দায়রা জজ কোর্টের আইনজীবী।

ঝন্টুকে গত ২২ আগস্ট রাতে কুপিয়ে আহত করে বড় ভাই নেপাল কান্তি নাথ (৪৫), দিলীপ নাথ (৩৮) এবং দিলীপের স্ত্রী রিপা নাথ (৩২)। টানা ২০ দিন চিকিৎসা নেওয়ার পর ৯ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে মারা যান ঝন্টু।

আরও পড়ুন: ‘পুলিশ খুন’ করে মাজারের ‘ফকির সেজেই’ পালিয়ে ছিল খুনি

এদিকে এ ঘটনায় দুই ভাই ও বৌদিকে আসামি করে মামলা করেন ঝন্টুর স্ত্রী রমাশ্রী দেবী। ২৮ আগস্ট রাঙামাটির কাউখালী থানায় এ মামলা করেন তিনি। কিন্তু এখনো কোনো আসামিকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

জানা গেছে, পূর্ব বিরোধের জের ধরে ২২ আগস্ট রাত সাড়ে ১০টার দিকে ঝন্টু কুমার নাথের বেডরুমে ঢুকে নেপাল, দিলীপ ও রিপা। এরপর রুমের দরজা বন্ধ করে দা দিয়ে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে ঝন্টুকে। এ সময় ঝন্টুর স্ত্রী রমাশ্রী দেবী রান্নাঘরে ছিলেন।

পরে স্বামীর চিৎকার শুনে এগিয়ে এলেও ভেতর থেকে দরজা বন্ধ থাকায় বাইরে দাঁড়িয়েই অসহায়ের মতো চিৎকার করতে থাকেন। পরে তারা চলে গেলে ঝন্টুকে উদ্ধার করে চমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। দীর্ঘ ২০ দিন চমেক হাসপাতালের ২৬ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন থাকার পর বৃহস্পতিবার (৯ সেপ্টেম্বর) সকালে তিনি মারা যান।

আরও পড়ুন: ৪ নারী খুন করেছেন নুরুলকে?

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কাউখালী থানার উপপরিদর্শক চয়ন দে আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, ঘটনার পরপরই আসামিরা গা ঢাকা দিয়েছে। তবে ঝন্টু কুমার নাথ মারা যাওয়ায় এই মামলাটা এখন হত্যা মামলায় পরিণত হবে। এক্ষেত্রে আইনি প্রক্রিয়াগুলো এগিয়ে নেওয়ার পাশাপাশি আসামিদের গ্রেপ্তারেও আমরা অভিযান অব্যাহত রাখব।

এসি

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm