‘কিশোর গ্যাং’—লকডাউনেও দলবেঁধে আতঙ্ক ছড়াচ্ছে ‘টিকটকার সেজে’

নগরে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে টিকটকার ‘কিশোর গ্যাং’। তারা মানছে না বিধিনিষেধ। পরোয়া করে না আইনের। বিভিন্ন গ্রুপে সংঘবদ্ধ এই কিশোর গ্যাংদের দৌরাত্ম্য বেড়েছে বায়েজিদ-ফৌজদারহাট লিংক রোডে।

সাইকলে রাইডারদের ‘গ্যাং’ সড়কটির অনেকটুকু অংশ দখল করে মত্ত থাকে ভিডিও ধারণে। তাদের প্রতিদিনের এ উৎপাতে অসহায় স্থানীয় মানুষ।

নগরের বায়েজিদ-ফৌজদারহাট লিংক রোড যেন এখন উচ্ছৃঙ্খলদের বিনোদনকেন্দ্র। বিকেল হলেই এখানে নামে উঠতি বয়সের তরুণ-তরুণীর ঢল। মূলত আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও জেলা প্রশাসনের নজরদারির অভাবেই বায়েজিদ লিংক রোডে বেড়েছে টিকটকারের আড়ালে কিশোর গ্যাংয়ের উৎপাত।

শুক্রবার (৬ আগস্ট) বিকেলে নগরের বায়েজিদ-ফৌজদারহাট লিংক রোডে সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, কয়েকজন তরুণ-তরুণী সড়কের মাঝখানে গানের সুরে সুরে নাচছে। সিনেমার মতো ডায়লগ বলছে। চলছে টিকটকে ভিডিও ধারণ। তাদের এ কাজের কেউ প্রতিবাদ করার সাহস করে না।

স্থানীয়রা জানান, টিকটকাররা সংঘবদ্ধ। কাউকে কিছু বললে সবাই জড়ো হয়ে প্রতিবাদকারীকে মারতে তেড়ে আসে। তাই বিরক্ত হলেও কেউ প্রতিবাদ করে না।

এদিকে সাইকেল নিয়ে ঘুরতে আসা কয়েকজন তরুণকে দেখা গেল সড়কের মাঝখানেই শুয়ে থাকতে। আবার কেউ কেউ দেখাচ্ছে কসরত। অনেকে মত্ত আড্ডায়।

স্থানীয় এক বাসিন্দা জানান, উঠতি বয়সের এসব কিশোরের বেপরোয়া আচরণে হেনস্থার শিকার পথচারী ও যানবাহনে চলাচলকারীরা। তাদের সড়কের একপাশে যেতে বললে, গায়ে হাত তুলতে উদ্যত হয়। অশ্লীল গালি দেয়। এই সড়কটি এখন যেন কিশোর গ্যাংয়ের ‘স্বর্গরাজ্য’।

এদিকে অটোরিকশায় জরুরি রোগী নিয়ে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আসার পথে আবদুর রহিম নামের এক ব্যক্তি পড়েন এ সাইকেল রাইডারদের সামনে। মাঝ সড়কে শুয়ে আছে কয়েকজন তরুণ, সঙ্গে সাইকেলও। এ নিয়ে কোনো কথা না বলে গাড়ির গতি কমিয়ে চলে যান তিনি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে রহিম বলেন, তরুণদের সঙ্গে তর্ক করতে গিয়ে রোগী ও নিজের জীবন বিপন্ন হতে পারে। তাই কোনো কথা না বলে সরে আসলাম।

এ ব্যাপারে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. ওমর ফারুক আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, সরকারি বিধিনিষেধ চলাকালে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাইরে বের হওয়ার সুযোগ নেই৷ আমরা প্রতিদিন নগরের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে জরিমানা করছি। নগরের কোনো স্থানে জনসমাগম হলে সেখানে অভিযান পরিচালনা করে জরিমানা করা হবে৷

ডিসি

6 মন্তব্য
  1. Saham বলেছেন

    ভাই আপনাদের কাজ কাম নাই?
    এরা সাইকেলিস্ট যে চোখে দেখেন না?
    নিউজ বানালে বানান! তবে এদের কে কেন?
    যারা দূর্নীতি করে তাদের নিয়ে বানান। আজাইরা নিউজ কেন করেন। অশিক্ষিত মূর্খ

    1. Gdnmithu বলেছেন

      বদ্দা,
      আজাইরা নিউজ এগিন পাব্লিশ গরন অত্তুন বিরত থাহন..!

      ইবে আরার চট্টগ্রাম অর সাইক্লিং স্টান্ট গ্রুপ..!

      কিশোর গ্যাং অর যারা ওতপ্রোতভাবে জড়িত তারারে লই নিউজ গরন..!

      এসব নিউজ অচিরেই ডিলেট গরি, সি আর এ স্টান্ট রাইডার কর্তৃপক্ষ অত্তুন ক্ষমা প্রার্থনা গর অন..!
      আঁরা ইতিমধ্যে অনরার বিরুদ্ধে লিগ্যাল একশন অত যাইবেল্লাই প্রস্তুতি লই…!
      ধন্যবাদ….

  2. Muntaha বলেছেন

    Nah jene mane hudai news banate eseh jan ki jnne? Jersey may b chinen nah? Just fame kamaite hbe so hut hat news ekta cyclist dyei banai dlen
    So lame! Hazar hazar durniti hcce ta choke portse nah? Tike dbe bole j ta ghore ghore giye 1000tk dye bechtese ta choke pore nah?

  3. তামিম বলেছেন

    ৬মাসের কোর্স নিয়ে সাংবাদিকতা করলে এমনই হয়….

    যথাশীঘ্রই এ নিউজ ডিলিট করার অনুরোধ করছি..!
    অন্যথায়,এসব ফেইক নিউজের পরিণতি খুবই খারাপ হবে.!

    সাইক্লিস্টদের কিশোর গ্যাংয়ের সাথে তুলনা করা এটাই বড়সড় অপরাধ করে ফেলেছেন আপনারা।

    আর বাকি রইলো,আবাল-শিক্ষিত মুর্খরা…
    পুরো নিউজ তো কখনো দেখেনা,মাঝখানে হুট করে বলদের মতো ঢুকে কমেন্ট করে বসে…।

    সাইকেল স্টান্ট আর টিকটক একজিনিস কোথা থেকে হয়ছে একটু জানাবেন??চট্টগ্রামে স্বনাম ধন্য অনেক সাইকেল গ্রুপ রয়েছে যারা সম্পূর্ণ অরাজনৈতিক।। এভাবে ভুল ভাল ছবি দিয়ে মান ক্ষুণ্ন করবেন না এবং নিজের মনুষ্যত্ব, পেশা এবং শিক্ষাগত যোগ্যতাকে প্রশ্নবিদ্ধ করবেননা

  4. সৈয়দ ফরহাদ বলেছেন

    ওট পাশ সাংবাদিক!

  5. Ashraful Islam বলেছেন

    Hi

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm