সাগরপাড়ে বেড়াতে যাওয়া কিশোরীকে দলবেঁধে গোয়ালঘরে ধর্ষণ, র‌্যাবের জালে ধর্ষক

চারজন মিলে এক কিশোরীকে ধর্ষণ করেন। এরপর থেকেই তারা পলাতক। তবে দীর্ঘদিন পালিয়ে থেকেও শেষ রক্ষা হলো না। অবশেষে তাদের একজন ধরা পড়েছে।

মঙ্গলবার (১৬ নভেম্বর) রাতে চান্দগাঁও টেকবাজার এলাকা থেকে মো. ইব্রাহীমকে (৪০) আটক করে র‌্যাব-৭।

আটক ইব্রাহীম সীতাকুণ্ডের মাহমুদাবাদ চৌধুরীপাড়ার মো. দেলোয়ারের ছেলে। পলাতক তিন আসামি হলেন- মো. খোকন (২৮), মো. সাগর (২৩) ও মো. মুন্না (২০)।

আরও পড়ুন: অসৎ উদ্দেশে আটকে রাখা হয়েছিল—দুর্গম পাহাড় থেকে উদ্ধার দুই কিশোরী

জানা যায়, গত ১৫ জুলাই দুপুরে বাঁশবাড়িয়ার সাগরপাড়ে বেড়াতে যাওয়ার জন্য বাড়ককুণ্ডে বান্ধবীর বাড়িতে যায় ওই কিশোরী। বান্ধবীসহ বাঁশবাড়িয়া যাওয়ার পথে কয়েকজন যুবক তাদের অনুসরণ করে। একপর্যায়ে কিশোরীকে জোরপূর্বক একটি গোয়ালঘরে নিয়ে ধর্ষণ এবং ভিডিও ধারণ করে।

র‌্যাবের সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) নিয়াজ মোহাম্মদ চপল আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, দলবেঁধে জোরপূর্বক এক কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে গত ৫ অক্টোবর কিশোরীর মা বাদী হয়ে সীতাকুণ্ড থানায় ধর্ষণ মামলা করেন। এরপর ছায়াতদন্ত শুরু করে র‌্যাব। মঙ্গলবার ধর্ষণ মামলার আসামি ইব্রাহীম চান্দগাঁও টেকবাজার এলাকায় অবস্থান করছেন— এমন সংবাদে অভিযান পরিচালনা করে তাকে আটক করা হয়।

তিনি আরও বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ইব্রাহিম স্বীকার করে সে এবং তার সহযোগীরা ভয়ভীতি দেখিয়ে গোয়ালঘরে আটকে রেখে কিশোরীকে দলবেঁধে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়। আইনানুগ প্রক্রিয়া শেষে তাকে সীতাকুণ্ড থানায় হস্তান্তর করা হয়।

এএইচ/আরবি
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm