ফুঁসছে জামালখান, কাউন্সিলর শৈবাল লাইভে এসে কেটে দিল ডিশ-ইন্টারনেটের তার

নগরের জামালখান ওয়ার্ডে হঠাৎ ইন্টারনেট ও ডিস ক্যাবল সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছেন ওয়ার্ড কাউন্সিলর শৈবাল দাশ সুমন। স্থানীয় কাউন্সিলরের এমন কাণ্ডে ভীষণ সমস্যায় পড়েছে ব্যাংক, মিডিয়া হাউসসহ বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠান।

এদিকে কাউন্সিলরের তুঘলকি কাণ্ডে ক্ষুব্ধ জামালখানের ইন্টারনেট ব্যবহারকারীরা। তারা ফেসবুকে উগড়ে দিচ্ছেন ক্ষোভ।

এর আগে বৃহস্পতিবার (৬ অক্টোবর) দুপুর ১টার দিকে হঠাৎ ফেসবুক লাইভে এসে তিনি ইন্টারনেট ও ডিস ক্যাবল সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন।

আরও পড়ুন : জামালখানে ‘সম্প্রীতি’র কনসার্ট, চসিক কাউন্সিলরের কাণ্ডে সমালোচনার ঝড়

এদিকে পূর্ব ঘোষণা ছাড়া এভাবে হুট করে সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়ার কারণে গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠানসহ অসংখ্য ব্যবহারকারী বিপাকে পড়েছেন।

Yakub Group

জানা গেছে, সংযোগ কেটে দেওয়ায় জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনসহ যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্রে গুরুত্বপূর্ণ সফরের সার্বিক বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন দেখতে পারেনি ওয়ার্ডের বাসিন্দারা। এ নিয়ে চরম ক্ষুব্ধ জামালখানের সচেতন মহল।

আজ (বৃহস্পতিবার) ৪৪ মিনিট ৪১ সেকেন্ডের ফেসবুক লাইভ ভিডিওতে ওয়ার্ডের সব ডিস ও ইন্টারনেট সংযোগ কেটে দেওয়ার কথা বলেন কাউন্সিলর শৈবাল দাশ সুমন। এসময় তার নির্দেশনায় চেরাগী পাহাড়ের মোড় এলাকার সব ইন্টারনেট ও ডিস ক্যাবল কেটে দেওয়া হয়।

এরপর জামালখান, রহমতগঞ্জ, দেওয়ান বাজার, খাতুনগঞ্জ, চকবাজার, পূর্ব বাকলিয়া, পশ্চিম বাকলিয়া, মোহড়া, চান্দগাঁও, বদ্দারহাট, চাক্তাই, বোয়ালখালী, কর্ণফুলী, পটিয়া পর্যন্ত বন্ধ হয়ে যায় সম্প্রচার। পরে ইন্টারনেট ও ডিস সার্ভিসের টেকনিশিয়ানরা সংযোগ ঠিক করতে গেলে তাদের বাধা দেন কাউন্সিলর শৈবাল দাশ সুমন।

শৈবাল দাশ সুমনের এমন কাণ্ডে ক্ষুব্ধ এলাকার সচেতন মানুষ ও ইন্টারনেট ব্যবহাকারীরা। এসময় ফেসবুকে অনেকেই ক্ষোভ ঝেড়েছেন কাউন্সিলরের ওপর।

আরও পড়ুন : হাসপাতালে কাতরাচ্ছে আ. লীগ নেতার ঘরে পুড়ে যাওয়া নারী, ‘ভয়’ দেখাচ্ছেন চসিক কাউন্সিলর

রিদওয়ানুল ফিরদৌস নামে এক ফেসবুক ব্যবহারকারী লিখেন, ইন্টারনেট সংযোগ মানুষের মৌলিক চাহিদা। আগাম নোটিশ না দিয়ে এত গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় মাথা গরম করে হঠাৎ লাইনগুলো কেটে দিলেন। ব্যবসায়ীদেরও সুযোগ করে দিলেন, ওরা আপনার ওপর দায় চাপিয়ে দিব্যি বসে থাকবে, না হলে ব্যবসা বন্ধ রাখবে। ভুক্তভোগী হবে জনগণ।

এর আগে কাউন্সিলর শৈবাল দাশ সুমন বলেন, ডিস ও ইন্টারনেট ব্যবসায়ীরা কোনো ধরনের টাকা-পয়সা না দিয়ে বৈদ্যুতিক খুঁটিগুলো ব্যবহার করছে। তাদের কারণে যেকোনো সময় বৈদ্যুতিক খুঁটিতে বিপদ ঘটতে পারে। তাই জামালখান ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হিসেবে আমি ইন্টারনেট ও ডিসের সব সংযোগ কেটে দিচ্ছি। এজন্য বাসাবাড়ি ছাড়াও ব্যাংকসহ অনেক প্রতিষ্ঠানের সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যাবে। তবুও আমার কিছু করার নেই। কাটার পর যদি আবার ঠিক করার জন্য আসে তাহলে তাদের বেঁধে রাখা হবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার এসোসিয়েশন অফ বাংলাদেশের চট্টগ্রাম বিভাগের আহ্বায়ক রাজিব শাহরিয়ার রুবেন্স আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, এ ঘটনার আগে আমাদের সাথে কাউন্সিলর শৈবাল দাশ সুমন বা কেউই যোগাযোগ করেননি। আমাদেরকে কোনোভাবেই এবিষয়ে আগে অবহিত করা হয়নি। এছাড়া এভাবে হঠাৎ একটা ওয়ার্ডের সমস্ত ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়ার এখতিয়ার তো কাউন্সিলরের নেই। এটা দেখার এখতিয়ার পিডিবির। আমরা পিডিবির বৈদ্যুতিক খুঁটি ব্যবহার করে সংযোগ চালিয়েছি। এছাড়া আমাদের হাতে তো আর অপশনও নেই। এখনও চট্টগ্রামে আন্ডারগ্রাউন্ড সিস্টেমের কোনো ব্যবস্থা নেই। এমনকি ঢাকায়ও মাত্র ২০-৩০ শতাংশ এলাকায় আছে এ সুবিধা।

তিনি আরও বলেন, জামালখান ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হুট করে আজকে যা করলেন তা কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য না। এসব সংযোগ কাটার সময় উনি ফেসবুক লাইভে বলেছেন, আবার সংযোগ স্থাপনের জন্য কেউ আসলে তাদের বেঁধে রাখা হবে। তাই নিরাপত্তাজনিত কারণে আমাদের এসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে আপাতত সংযোগ পুনঃস্থাপন না করতে নোটিশ দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে মেয়রের অফিস থেকে আমাদের সাথে যোগাযোগ করা হয়েছে। মেয়রের সাথে আলাপ করে আমরা কাউন্সিলর শৈবাল দাশের এমন কাণ্ডের অভিযোগ জানাব এবং এর সুষ্ঠু সমাধান চাইব। এটা তো কেবল আমাদের ব্যবসায়িক বিষয় না, এটা অসংখ্য সাধারণ মানুষের ভোগান্তির বিষয়।

এ বিষয়ে ক্যাবল অপারেটর অব বাংলাদেশের (কোয়াব) মহাসচিব নিজাম উদ্দিন মাসুদ আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, কোনো ধরনের যোগাযোগ ছাড়াই আজকে জামালখান ওয়ার্ডে আমাদের ডিস ক্যাবল কেটে দেওয়া হলো, ইন্টারনেট সংযোগেরও সব কেবল কেটে দেওয়া হয়েছে। এজন্য এখন জামালখান ওয়ার্ডের সাধারণ মানুষদেরকে ভুগতে হচ্ছে। যেহেতু অনেকগুলো ক্যাবল কেটে দেওয়া হয়েছে তাই এসব রিস্টোর করতেও সময় লাগবে অনেক। আমাদের ডিস ক্যাবল যা কেটে দেওয়া হয়েছে তাতে প্রায় ৩ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। তবে ইন্টারনেট ক্যাবল কাটার ক্ষয়ক্ষতি আরও বেশি হবে। এখন বিষয়টা সমাধান হলে আমরা আবার ডিস সংযোগ পুনঃস্থাপনের প্রক্রিয়া শুরু করব। এজন্য কিছুদিন তো সময় লাগবেই।

অনাকাঙ্ক্ষিত এ ঘটনায় সার্ভিস বন্ধ থাকায় আমাদের সাধারণ ব্যবহারকারীদের কাছে দুঃখ প্রকাশ করছি।

জেএন/আরবি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

মন্তব্য নেওয়া বন্ধ।

ksrm