করোনার টিকার কার্যকারিতা নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য বাংলাদেশি বিশেষজ্ঞের

করোনার টিকা (ভ্যাকসিন) নিলেই ‘নিশ্চিন্ত’— এমনটা ভাবার সুযোগ নেই। খোদ বিশেষজ্ঞরাই বলছেন এ কথা। তারা বলছেন, দুই ডোজ টিকা নেওয়া ব্যক্তিও আক্রান্ত হতে পারেন করোনায়।

সাম্প্রতিক সময়ে বেশ কয়েকজনের ক্ষেত্রে এমন হয়েছে। দুই ডোজ টিকা নিয়েও করোনা আক্রান্ত হয়েছেন, পরে মৃত্যু হয়েছে— এমন খবরও এসেছে সংবাদমাধ্যমে। তাই দেশের স্বাস্থ্য বিভাগের শীর্ষ কর্মকর্তারা বলছেন, করোনার টিকা নিলেও সতর্কতায় ‘ঢিল’ দেওয়ার সুযোগ নেই। মাস্ক পরতে হবে, মানতে হবে স্বাস্থ্যবিধি।

এ ব্যাপারে জানতে কথা হয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কোভিড-১৯ (ইআরপিপি) প্রোগ্রামের প্রকল্প পরিচালক ডা. মো. আজিজুর রহমান সিদ্দিকীর সঙ্গে। তিনি আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, ভ্যাকসিন নিলেই করোনাভাইরাস থেকে শতভাগ সুরক্ষা নিশ্চিত হয় না। আপনি যদি টিকার দুটি ডোজই নেন, টিকা নেওয়ার দুই থেকে তিন সপ্তাহ পর সাধারণত ৬০ থেকে ৮০ শতাংশ পর্যন্ত ‘ইমিউনিটি’ হয়। তারপরও ২০ থেকে ৪০ শতাংশ পর্যন্ত ঝুঁকি তো থেকেই যায়।

তিনি বলেন, টিকা যে সারাজীবন সুরক্ষার নিশ্চয়তা দিচ্ছে তাও তো না। সুতরাং টিকা নিয়ে আপনি মোটামুটি ভালো একটা অবস্থানে থাকতে পারেন, কিন্তু শতভাগ সুরক্ষায় আছেন এমনটা বলা যাবে না।

তাই টিকা নিলেও মাস্ক পরতে হবে। টিকা নেওয়ার আগে যেভাবে চলতেন, সেভাবেই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে— যোগ করেন তিনি।

প্রসঙ্গত, ২০২০ সালের ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনা শনাক্তের খবর জানায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। বর্তমানে দেশের বিভিন্ন স্থানে করোনার টিকাদান কর্মসূচি চলমান রয়েছে।

জেডএইচ

1 মন্তব্য
  1. মো. ডালিম সরকার বলেছেন

    ডা. মো. আজিজুর রহমান সিদ্দিকী ভাইয়ের গুরুত্বপূর্ণ কথাগুলো আমরা মেনে চললে টিকার চেয়ে অনেক গুণ বেশি সুস্থতা নিয়ে জীবন যাপন করতে পারব আমরা। কেননা নিজের সুরক্ষা নিজেকেই করতে হবে, টিকা দিয়ে নয়। আসুন আমরা সকলে মিলে স্বাস্থ্যবিধি মানি, অন্যকে মানতে উৎসাহিত করি।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm